কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে আ. লীগ নেতা গ্রেপ্তার

ডেস্ক নিউজ:
এক কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মনোরঞ্জন শীল নকুলকে (৫০) গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কলেজ ছাত্রীর লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে গতকাল শুক্রবার ( ১১ সেপ্টেম্বর) বিকেলে তাকে নিজ বাড়ি থেকে আটক করে পুলিশ।

নকুল চন্দ্র শীল শিবালয় নতুন পাড়ার মৃত মঙ্গল শীলের ছেলে।

শিবালয় উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আব্দুল কুদ্দুস আরটিভি নিউজকে বলেন, বিষয়টি আমারা জানা নেই। ঘটনা সত্যি হলে দলীয় সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ভুক্তভোগী ও পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি মোটর সাইকেল দুর্ঘটনায় একটি হাত ভেঙ্গে যায় আওয়ামী লীগ নেতা নকুল শীলের। হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে তিনি বাড়ি আসার পর ওই কলেজ ছাত্রী প্রতিদিন তিনশত টাকার বিনিময়ে তার হাত ম্যাসেজ করে দিতেন। প্রতিদিনের মত বৃহস্পতিবার দুপুরে হাত মেসেজ করে দিতে গেলে নকুল জোর করে তার শরীরের বিভিন্ন স্পর্শকাতর স্থানগুলোতে হাত দেয় এবং ধর্ষণের চেষ্টা করে। এসময় কলেজ ছাত্রীর চিৎকারে পাশের ঘর থেকে তার স্ত্রী এগিয়ে আসলে তাকে ছেড়ে দেয়।

ভুক্তভোগীর মা আরটিভি নিউজকে জানিয়েছেন, এ ঘটনার পর নকুল আমাদের পাঁচ হাজার টাকা দিয়ে কাউকে কিছু না বলতে নিষেধ করেন। কাউকে কিছু বললে কিংবা পুলিশকে জানালে সমস্যা হবে বলে হুমকি-ধামকিও দিয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, নকুলের চরিত্র আগে থেকেই খারাপ। এর আগে, ও আমাকেও কু প্রস্তাব দিয়েছিল। আমি এ ঘটনার সুষ্ঠ বিচার চাই।

জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান আরটিভি নিউজকে বলেন, নকুল চন্দ্র শীলের বিরুদ্ধে শিবালয় থানায় ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ দায়ের করে এক কলেজ ছাত্রী। প্রাথমিক তদন্তে ঘটনার সত্যতা পাওয়ায় অভিযুক্ত ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.