কর্মসূচিহীন কর্ণফুলী ছাত্রদল, প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে নেই উচ্ছ্বাস

জে,জাহেদ বিশেষ প্রতিবেদকঃ

রাজনীতির মাঠে ছাত্র জনতার বেশ কদর। দেশের রাজনীতিতে ছাত্রদের অবদান কম নয়।

বিএনপির ভ্যানগার্ড হিসেবে পরিচিত জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের ৩৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ।

কর্ণফুলীতে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালনে উপজেলা ছাত্রদলের ও কোনো খবর নেই।

এক সময় জমজমাট প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করা হলেও,ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের মাঝে কোন উচ্ছ্বাস নেই।

সূত্রে জানা গেছে, ১ জানুয়ারি ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে কোন উদযাপনের আয়োজন নেই কর্নফুলী উপজেলায়। অনেকটা চুপিসারে কেক কাটাই সীমাবদ্ধ বলে জানা যায়।

গত কয়েকদিন যাবৎ বিভিন্ন সামাজিক সাইট ও পত্রপত্রিকায় ছাত্রদলের ওয়ার্ড কমিটি গঠন করার খবর প্রকাশিত হলেও কর্ণফুলীতে বড় কোন কর্মসূচি এখনো চোখে পড়েনি।

যদিও দীর্ঘদিন ঝিঁমিয়ে থাকা ছাত্রদলকে চাঙ্গা করার প্রয়াসে,বিভিন্ন ইউনিট কমিটি গঠন করা হচ্ছে বলে জানান উপজেলা ছাত্রদলের কয়েকজন নেতাকর্মী।

কর্ণফুলী উপজেলার চরপাথরঘাটা ইউনিয়নে সাম্প্রতিক ছাত্রদলের বিলপ্ত হওয়া নানা কমিটি ও তৃণমুলে বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিতে দেখা গেলেও,তবে দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে কেন্দ্রের মতো নীরব বলে জানা যায়।

তথ্যসুত্রে, গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন ও উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীদের নানা গনসংযোগ কালে ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের ভূমিকা ছিলো প্রশংসানীয়। তবে তারা বিভিন্ন কমিটির ঝুলন্ত পদে পদায়িত বলেও দাবি করে ছাত্রদলের একটি অংশ। বেশির ভাগ কমিটির মেয়াদ পুর্ন হবার পরও নতুন কমিটি হচ্ছেনা।

সর্বশেষ ২০১৩ সালে তৃণমূলে কমিটি করা হলেও জেলার নেতাদের গা চাঁড়া ভাব আর দায়িত্ব অবহেলার কারনে তৃণমূলে অনেক কমিটি ঝুলিয়ে রয়েছে বলে জানা যায়।

এদিকে ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে কোন দলীয় কর্মসূচি আছে কিনা জানতে চাইলে থানা ছাত্রদলের সভাপতি মুসা সিকদার বলেন, আজ বাদে মাগরিব ব্রীজঘাট দলীয় অফিসে কেক কেটে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করা হবে”।

ছাত্রদলের উৎপত্তি বিষয়ে জানা যায়, প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান যখন বিএনপি প্রতিষ্ঠা করেছিলেন।

তখন তিনি ভবিষ্যতের নেতৃত্ব তৈরির জন্য একটি ছাত্রসংগঠন প্রতিষ্ঠার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করেন। তাই ১৯৭৯ সালের ১ জানুয়ারি কেন্দ্রীয়ভাবে ছাত্রদল প্রতিষ্ঠা করেন তিনি।

তখনকার সময়ে জিয়াউর রহমানের জনপ্রিয়তার জন্য অনেক তরুণ অনুপ্রাণিত হয়ে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলে যোগদান করেন।

বর্তমানে যারা বিএনপির রাজনীতিতে যুক্ত, তাদের অনেকেই জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলে যুক্ত ছিলেন বলে জানা যায়।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.