কচ্ছপিয়ায় বাল্য বিবাহ একটা পন্ড করলেও চলছে অপরটার প্রস্তুুতি

মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু :

রামু উপজেলার কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের তুলাতলি এলাকায় ইউএনও নির্দেশে পুলিশ কুলছুমার বাল্য বিবাহ বন্ধ করলেও অপরদিকে প্রস্তুতি চলছে আয়েশা বেগম বিজলীর। গর্জনিয়া ফাঁড়ী পুলিশের এ এস আই জুয়েল বড়ুয়া জানান তুলাতলি গ্রামের কবির আহম্মদের মেয়ে কুলছুমা আক্তারের (১৫) সাথে রামুর ফতেখাঁর কুল ইউনিয়নের আবদু ছালামের ছেলে মোঃ শহিদুল্লাহ ১৯ এর বিবাহ ২৩ ফেব্রুয়ারি (শুক্রবার) বিবাহের অনুষ্ঠানিকতা চলছিল। স্থানীয় সচেতন মহল বর ও কনে অপ্রাপ্ত বয়স আঁচ করতে পেরে রামু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে খবর দেয়। নির্বাহী অফিসারের নির্দেশ গর্জনিয়া ফাঁড়ী পুলিশের ইনচার্জ আরিফ উদ্দিনের নেতৃত্বে এক দল পুলিশ বিকাল সাড়ে তিনটায় এ বাল্য বিবাহ অনুষ্ঠান পন্ড করে দেয়। এ বিষয়ে ইউএনও বলেন কুলছুমার বিয়ে বন্ধ করা হয়েছে। অপর দিকে একই এলাকার আশ্রয়ন প্রকল্পের আলি আহাম্মদের ৫ম শ্রেণীর পড়ুয়া মেয়ে আয়েশা বেগম বিজলীর বিবাহের বিষয়ে স্কুলের প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। যদি এর পরেও বিয়ের আয়োজন করে জড়িতদের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.