কক্সবাজারে মহাসমাবেশ করতে অনড় বিএনপি

ইমাম খাইর:
সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও বিদেশে চিকিৎসার দাবিতে সমাবেশের ডাক দিয়ে একেএকে ৩বার স্থান পরিবর্তন করতে হয়েছে বিএনপিকে। তবু কর্মসূচি পালনে অনড় দলটি। কক্সবাজার কেন্দ্রিয় ঈদগাহ মাঠে মহাসমাবেশ করবে।
এ জন্য ব্যাপক প্রস্তুতি রয়েছে তাদের। ইতোমধ্যে বিভিন্ন এলাকা থেকে কর্মী সমর্থকদের সমাগম শুরু করেছে। গতরাতেই দূর এলাকার অনেক জনশক্তি শহরে ঢুকে গেছে। অনেকে ভোর সকাল থেকে আসতে দেখা গেছে। আজকের মহাসমাবেশকে ‘চ্যালেঞ্জ’ হিসেবে নিয়েছেন বিএনপি নেতারা।
এদিকে, নানা কারণে বারবার সমাবেশের স্থান পরিবর্তন করতে হয়েছে বিএনপিকে। তবু পিছু হটেনি নেতৃবৃন্দ। কেন্দ্রীয় এই কর্মসূচি পালনে অনড় অবস্থানে। যেভাবেই হোক, সমাবেশ করে দেখাবে তারা-সিদ্ধান্ত এমনই।
প্রথমে বাহারছড়া গোলচত্তর মাঠে বিএনপির মহাসমাবেশের ঘোষণা দেয়া হয়। সে লক্ষ্যে প্রচারণা চলে। সমাবেশস্থলের আশেপাশে পোস্টারে ছেয়ে যায়। পরে সেখানে প্রশাসনিক বাধায় সম্ভব হয় নি। ঘোষণা দেয়, দলের অফিসের সামনে শহীদ সরণিতে করবে। তার জন্য স্টেইজ নির্মাণের কাজ শুরু করে। দ্রুত চলছিল অন্যান্য কাজও। ‘গণতন্ত্রের বিজয় দিবস উদযাপন’ উপলক্ষে শহীদ মিনারে যুবলীগ সমাবেশ ডাক দেয়ায় তাতেও সম্ভব হয় নি। রাতেই সিদ্ধান্ত বদল করতে হয়েছে বিএনপিকে।
এদিকে, দুইপক্ষের মধ্যে সংঘাত-সংঘর্ষের আশঙ্কায় রবিবার (২ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় ৭ টার দিকে ১৪৪ ধারা জারি করেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) মো. আবু সুফিয়ান।
শহরের শহিদ সরণিস্থ জেলা বিএনপির কার্যালয় ও কেন্দ্রীয় শহিদ মিনার এলাকার ২০০ গজ ব্যাসার্ধজুড়ে যে কোনো ধরনের সভা-সমাবেশ এবং মিছিল-মিটিংসহ জনসমাগম নিষিদ্ধ ঘোষণা করেন। সোমবার সকাল ৮ টা থেকে রাত ১২ টা পর্যন্ত এ নির্দেশনা কার্যকর থাকবে।
এডিএম জানান, একই সময়ে দুইটি রাজনৈতিক সংগঠনের কর্মসূচি ঘোষণা দেওয়ায় অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে প্রশাসন ১৪৪ ধারা জারি করেছে।
প্রশাসনিক নির্দেশনা বাস্তবায়নে ঘটনাস্থলে ও মাঠে চার জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত নিয়োজিত থাকবে।
পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ব্যবস্থা নিতে পুলিশ ও র‍্যাবসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে- জানান মো. আবু সুফিয়ান।
এদিকে, ৩ জানুয়ারী সকালে সমাবেশস্থল পরিদর্শন করেছেন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামীম, মৎস্যজীবি বিষয়ক সম্পাদক সাবেক সাংসদ লুৎফুর রহমান কাজল, জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক হুইপ শাহজাহান চৌধুরী। এ সময় যুবদল, ছাত্রদল, স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে, সমাবেশে যোগ দিতে ইতোমধ্যে কক্সবাজারে পৌঁছেছেন প্রধান অতিথি বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান।
সমাবেশের বিশেষে অতিথি বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামীম, সহ-সাংগঠনিক হারুনুর রশিদ, বেগম জিয়ার উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনুসহ আরো গুরুত্বপূর্ণ নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখবেন।
দলের চেয়ারপারসের নিঃশর্ত মুক্তি ও বিদেশে চিকিৎসার দাবিতে সমাবেশে সভাপতিত্ব করবেন জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক হুইপ শাহজাহান চৌধুরী।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.