কক্সবাজারের  হাফেজ ইয়াসিন আরাফাত সংবর্ধিত

 

কক্সবাজার প্রতিনিধিঃ

কক্সবাজারের হাফেজ ইয়াসিন আরাফাত খান (মাত্র ৮৬ দিনের হাফেজ) জাতীয় পর্যায়ে সংবর্ধিত হয়েছেন। জাতীয় হিফযুল কুরআন প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান ২০১৮’ এ সংবর্ধনা দেয়া হয়। আজ (১৭ ফেব্রুয়ারি) শনিবার সন্ধ্যায় ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরা হলে আয়োজিত অনুষ্ঠানের ছিলেন আয়োজক আহলুল হুফফাজ ফাউন্ডেশন।

বিশ্বজয়ী কিংবদন্তি ও জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা সম্মানন ক্রেষ্ট দিয়ে হাফেজ ইয়াসিন আরাফাতকে অভিসিক্ত করেন। সভাপতিত্ব করেন এশিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশর ভাইসচ্যান্সেলর ড.আবুল হাসান মোঃ সাদেক।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন,তানযীমুল উম্মাহ ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান হাবীবুল্লাহ মুহাম্মদ ইকবাল, খাদিমুল হুফফাজ ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মাওলানা ইলিয়াস,ইসলামী ব্যাংকে ডিএমডি ইকবাল কাবীর মোহন,বায়তুল মুকাররমের পেশ ইমাম মুহিববুল্লাহিল বাকী,মাওলানা মিজানুর রহমান,মুহিউদ্দীন কাসেম,ড.মন্জুরে ইলাহী,মাওলানা লিয়াকত আলীসহ দেশবরেণ্য আরো অনেক উলামায়ে কেরামগন।

উল্লেখ্য, গত বছরের অক্টোবরে তানযীমুল উম্মাহ হিফজ মাদ্রাসা কক্সবাজার শাখা থেকে ক্লাসের হাজিরা খাতা অনুসারে মাত্র দুই মাস ২৬ দিনে (৮৬ দিন) ৩০ পারা কোরআন শরিফ খতম করেছে ইয়াসিন আরাফাত।বর্তমানে তানযীমুল উম্মাহ হিফয মাদরাসা কক্সবাজার শাখায় ৭ম শ্রেণীতে পড়ছে। ওখানেও মেধার স্বাক্ষর রেখে চলেছে ‘বিস্ময়কর হাফেজ’ ইয়াসিন আরাফাত। সত্যি এমন মেধা বিরল।

 

মাত্র সাড়ে ১২ বছর বয়সী ইয়াসিন আরাফাত কোরআন শিক্ষার পাশাপাশি সাধারণ শিক্ষায়ও চমকপ্রদ ফলাফল করে চলেছে।

পড়াশোনার পাশাপাশি ইয়াসিন আরাফাত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বার্ষিক ক্রীড়া-সাংস্কৃতিক আসরেও প্রথম পুরস্কারসহ বেশ কয়েকটি পুরস্কার অর্জন করে।যে বয়সে খেলাধুলা আর দুষ্টুমিতে ছেলেদের সময় কাটে, সে বয়সে ৩০ পারা পবিত্র কুরআন নির্ভুলভাবে মুখস্থ করা বিশ্বের নতুন বিস্ময়। নজিরবিহীন এমন কাজটি করে দেখিয়েছ ইয়াসিন আরাফাত খান। তাও মাত্র ৮৬ দিনে। সে দৈনিক মুখস্ত করেছে ৭ পৃষ্টা। সাথে এক পারা করে পূর্বপাঠের হাজিরাও দিয়েছে। এর আগে সে ইবতেদায়ী সমাপনিতে বৃত্তি লাভ করে।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.