ওঠো যুবক কবি- শাহানা সিরাজী

ওঠো,এখনো ঘুম ভাঙেনি, যুবক?
শিকড়ের সন্ধান করো
পথ এখনো অনেক বাকি।
গাছের ছায়ায় থাকি গাছ কার ছায়ায় থাকে!
বিশ্বজুড়ে তৈরি হচ্ছে অস্ত্র
বলো তো এ অস্ত্র কেন?
চারদিকে রক্তের দুর্গন্ধ, এ রক্ত কার?

ওঠো,যুবক,আজানের ধ্বনি, শঙ্খ- ধ্বনি
গীর্জার ঢং ঢং একসাথে বাজাও
হিটলার- মুসোলিনি- মাওসেতু- অশোকরাজা নয়
পায়রার পাখায় শান্তির দূত,নদীর জলে নীলের আচ্ছাদন, পাহাড়ের ঢালে জীবনের প্রবাহ
খুঁজে নাও,বুকের জমিনে সবুজ ঘাস
তাতে বাঁহারীফুল আহবান করে-

ওঠো,যুবক,
মুঠো মুঠো প্রেম দাও আর্য-অনার্য কুটিরে
সীমান্ত নয়,কাঁটাতার নয়,ক্ষমতা নয়,ঐশ্বর্য নয়
বাল্মিকির ধ্যানে দাও নতুন যুগের ফুঁ
আমরা মানুষ, পৃথিবী আমাদের।বাঁচা-সুরক্ষা সবার-
জাতি নয়, গোষ্ঠি নয়,সাদা নয়,কালো নয়
শুধুই ভালোবাসা। রক্তের রঙের মতো
ধমনির প্রবাহের মতো,পাচকরসের ক্রিয়ার মতো
থায়রয়েড় গ্রন্থির মতো কিংবা হিমোগ্লোবিনের মতো
একই ধারার ঝর্ণার মতো মানুষ আমরা…

ওঠো, যুবক, অস্ত্র নয়,যুদ্ধ নয়
কান্না নয়,স্বজন হারানোর ব্যথা নয়
বিশালাকাশের নিচে একই জমিনের
পথচারি, একদিন পাখি যাবে উড়ে
কাউকে কিছু না বলি
বলো বলো যুবক,মাটিকে আঁকড়ে ধরে
নয় উন্মাদনা,নয় নগ্ন উল্লাস,নয় দম্ভ অহংকার
মাটির দেহ মাটিতেই একাকার।

কফিন সবার
তুমি আর আমি মিলে
গড়ি ভালবাসার আধার
ওঠো, ওঠো যুবক—

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.