উ. কোরিয়াকে ধ্বংস করতে যুদ্ধে প্রস্তুত ট্রাম্প

ওয়ান নিউজ ডেক্সঃ উত্তর কোরিয়াকে ধ্বংস করার জন্য যুদ্ধে যেতে প্রস্তুত যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। দেশটির দূরপাল্লার পরমাণু অস্ত্রবাহী ক্ষেপণাস্ত্র তৈরির সক্ষমতা অর্জন ঠেকাতে কোনো ছাড় দিতে রাজি নন তিনি।

মঙ্গলবার ক্ষমতাসীন রিপাবলিকান দলীয় এক সিনেটর এ কথা জানান। খবর: এনডিটিভি।

প্রভাবশালী রিপাবলিকান সিনেটর ও পররাষ্ট্রনীতি বিশেষজ্ঞ লিন্ডসে গ্রাহাম এনবিসি’র একটি টিভি শো-তে বলেন, ‘এখানে সামরিক অপশনই খোলা আছে- উত্তর কোরিয়ার এই পারমাণবিক কর্মসূচি ধ্বংস করে দেওয়া এবং উত্তর কোরিয়াকে ধ্বংস করে দেওয়া।’

গত সপ্তাহে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন দম্ভ করে বলেছেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের যেকোন জায়গায় আঘাত হানতে সক্ষম তাদের সর্বশেষ পরীক্ষা চালানো আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্রটি।

এদিকে বিশ্বের ক্ষমতাধর রাষ্ট্রগুলো উত্তর কোরিয়ার ক্রমবর্ধমান এ অস্ত্রপরীক্ষা ঠেকানোর জন্য জাতিসংঘের মাধ্যমে বিভিন্ন নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার চেষ্টা চালিয়ে আসছেন। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বশক্তিকে হতাশ করে দিয়ে নিয়মিত বিভিন্ন ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা ও হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছে উত্তর কোরিয়া।

এ অবস্থায় যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান কী হতে পারে সে ব্যাপারে বলতে গিয়ে সিনেটর গ্রাহাম বলেন, যদি উত্তর কোরিয়া প্রতিবেশী চীনের মধ্যস্থতায় তাদের কর্মসূচি স্থগিত না করে এবং কূটনৈতিক প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়, তাহলে যুক্তরাষ্ট্রের সামনে বড় কোনো সামরিক অভিযান পরিচালনা করা ছাড়া কোনো বিকল্প থাকবে না।

গ্রাহাম বলেন, ‘গত ২০ বছর ধরে সমঝোতার পথ থেকে সরে এসেছে উত্তর কোরিয়া। তারা যদি ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে হামলা চালানোর চেষ্টা করে তাহলে যুদ্ধ বেঁধে যাবে। উত্তর কোরিয়া যদি এই ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার কর্মসূচি অব্যহত রাখে তাহলে দেশটির সঙ্গে যুদ্ধ অনিবার্য।’

ট্রাম্পের সঙ্গে তার এক আলাপচারিতার প্রসঙ্গ তুলে এই রিপাবলিকান সিনেটর বলেন, ‘ট্রাম্প বলেছিলেন- উত্তর কোরিয়াকে কূটনীতিকভাবে বা যুদ্ধের মাধ্যমে থামাতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘আমি কূটনৈতিক প্রচেষ্টাকে পছন্দ করবো। কিন্তু আমরা তো উত্তর কোরিয়াকে এ সুযোগ দিতে পারি না যে, পরমাণু অস্ত্রবাহী কোরীয় ক্ষেপণাস্ত্র মার্কিন ভূখণ্ডে হামলে পড়ুক!’

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.