আ.লীগকে আবারো ভোট দেয়ার আহ্বান মতিয়া চৌধুরীর

ওয়ান নিউজঃ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে আবারো ভোট দিয়ে ক্ষমতায় আনার আহ্বান জানিয়েছেন দলের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য ও কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী। তিনি বলেন, পদ্মাসেতু নিয়ে বিএনপি-জামায়াত ষড়যন্ত্র করেছিল। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শিতায় তাদের ষড়যন্ত্র সফল হয়নি। পদ্মাসেতু এখন আর স্বপ্ন নয়, বাস্তব।

 

মঙ্গলবার দুপুরে যাত্রাবাড়ির মালঞ্চ কমিউনিটি সেন্টারের সামনে ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে মিলাদ মাহফিল ও তবারক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী আবুল হাসনাত।

 

মতিয়া চৌধুরী বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের মহাসড়কে। বাংলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে। রাস্তাঘাট, স্কুল-কলেজ, মাদরাসা, মসজিদ, মন্দির, বিদ্যুৎ সকল ক্ষেত্রে উন্নয়ন হচ্ছে। জীবনযাত্রার মান পরিবর্তন হয়েছে। মাথাপিছু আয় বেড়েছে। এসব কিছু সম্ভব হয়েছে জননেত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শি নেতৃত্বে। তাই বিশ্বে শেখ হাসিনা এখন উন্নয়নের রোল মডেল। তাই আবারো শেখ হাসিনার সরকারকে দেশের স্বার্থে-উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষার স্বার্থে ভোট দিয়ে ক্ষমতায় আনতে হবে।

 

ড. কামাল হোসেন প্রসঙ্গে কৃষিমন্ত্রী বলেন, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার শুরু করলেন জননেত্রী শেখ হাসিনা। সেখানে ড. কামাল হোসেনের ইহুদি জামাতা ডেভিড বার্গমান সাংবাদিকতার ভিসা নিয়ে এসে যুদ্ধাপরাধীদের পক্ষে নির্লজ্জ দালালি শুরু করলেন। অথচ সেই কামাল হোসেন এখন আমাদের নীতিবাক্য শোনান।

 

তিনি বলেন, ১৫ আগস্টের পর দিন ১৬ আগস্ট ড. কামাল হোসেনকে শেখ রেহানা যখন বলল, চাচা একটা আবেদন জানান বিশ্ববাসীর প্রতি, যেন মোস্তাক সরকারকে সমর্থন না দেয়া হয়। তিনি (ড. কামাল) রেহানার হাত ছাড়িয়ে দিয়ে চলে যেতে উদ্যত হলে রেহেনা গিয়ে বললেন, আপনি কথা দেন মোস্তাকের মন্ত্রী হবেন না। যখন ওসমানীকে প্রেসিডেন্ট ক্যান্ডিডেট করা হলো এই কামাল হোসেন ধমক খেয়ে ইলেকশনের আগের দিন পল্টন থেকে লেজ গুটিয়ে চলে গেলেন। আর উনারা আজ আসেন লম্বা লম্বা কথা বলতে। মনে রাখবেন ড. কামাল হোসেন- এই দেশ বীরবন্দনার দেশ, আপনাদের মত কাপুরুষরা ষড়যন্ত্র করে এদেশে বেশি দূর এগোতে পারবে না।

 

গিয়াস উদ্দিন গেসুর সভাপতিত্বে সভায় আরো বক্তব্য দেন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শাহে আলম মুরাদ, যাত্রাবাড়ি থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হারুনর রশীদ মুন্না, ৪৮নং ওয়াড কমিশনার আবুল কালাম অনু, আওয়ামী লীগ নেতা সাঈদ মিলন, এস এম আলী হোসেন রানা, মো.ইসমাইল হোসেন খানসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ, সেচ্ছাসেবক লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.