ঝিনাইদহে এবার পরকীয়ায় কুয়েত প্রবাসীর স্ত্রীকে নিয়ে চম্পট দিলেন পিন্টু !

ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ

ঝিনাইদহ সদরের ডাকবাংলা বাজারের পোতাহাটি গ্রামের মোঃ পিন্টু মিয়া এবার প্রবাসীর স্ত্রী ও এক জননীর মাকে নিয়ে পরকীয়ায় মজে ঘর ছেড়ে  চম্পট দিলেন।

 

গ্রামবাসী সুত্রে জানা গেছে, ঝিনাইদহ সদরে ডাকবাংলা বাজারের পাশে পোতাহাটি গ্রামের নয়মুল ইসলামের ছেলে পিন্টু মিয়া দির্ঘদিন ধরে ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু উপজেলার গবরাপাড়া গ্রামের কুয়েত প্রবাসী মোঃ আব্দার মোল্লার স্ত্রী রেহেনা খাতুনের সাথে পরকীয়া করে আসছে। দীর্ঘদিন পরকীয়ায় মাখামাখীর এক পর্যায়ে রেহেনাকে নিয়ে পিন্টু ঘর ছেড়ে পালিয়ে গেছে।

 

ঘটনার দিন রেহেনা তার শশুর বাড়ীতে অবস্থান করা কালীন (২৩শে ডিসেঃ) শুক্রবার আনুমানিক সন্ধ্যা ৭টার দিকে পিন্টু সাদা মাইক্রবাসে প্রবাসীর স্ত্রী রেহেনা ও রেহেনার কণ্যাকে সাথে নিয়ে অজানার উদ্দেশ্যে পাড়ী দিয়েছে বলে জানা গেছে।

 

সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, প্রবাসী আব্দার মোল্লার পাঠানো ও রেহেনার কাছে জমা থাকা নগত ৭ লক্ষ টাকা ও ১৩ ভরি ওজনের স্বর্ণালঙ্কার সহ প্রবাসীর স্ত্রী রেহেনা খাতুন পিন্টুর হাত ধরে পালিয়ে যায়।

 

ঝিনাইদহ সদরের ডাকবাংলা বাজারের নাথকুন্ডু গ্রামের সাবেক মেম্বর রেহেনার পিতা মোঃ অলি   সাংবাদিককে জানিয়েছেন, তিনি স্থানীয় ডাকবাংলা ক্যাস্পে একটি অভিযোগ করেছেন। তিনি বলেন, পিন্টু যদি আমার মেয়েকে দ্রæত ফেরৎ দেয়, তাহলে অভিযোগটি তুলে নিবো। নচেৎ পিন্টু আমার মেয়েকে নিয়ে যে বাড়ীতে অবস্থান করছে সেই বাড়ীর মালিক সহ পিন্টুর নামে অপহরণ ও ধর্ষণ মামলা করা হবে।

 

অতএব যদি কোন সুহৃদয়বান ব্যাক্তি বর্গ বা বাড়ীর মালিক-পিন্টু ও রেহেনার খোঁজ দিতে পারেন তাহলে তাকে পুরস্কৃত করা হবে। যোগাযোগ-রেহেনার ভাই মোবাঃ- ০১৯৩৩-৪৯ ৯০ ২১।

 

এদিকে ডাকবাংলা ক্যাম্পের আই সি খাইরুজ্জামান বলেন, পিন্টু রেহেনাকে নিয়ে উধাও হওয়ার পরে রেহেনার পিতা ক্যাম্পে একটি সাধারণ অভিযোগ করেছেন। তবে রেহেনা পিন্টুর সাথে পরকীয়ার কারণে উধাও হল কিনা বা তাকে অপহরণ করা হয়েছে কিনা এ ব্যাপারে  তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

 

Comments are closed.