সাড়ে তিন লাখ টাকা ঘুষে এবার অফিস সহকারীর চাকরী ! ঝিনাইদহ সদরের বংকিরা হাইস্কুলে তালা

ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ

স্কুল ফান্ডে টাকা জমা না দেওয়ায় ঝিনাইদহ সদরের বংকিরা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে তালা ঝুলিয়েছে এলাকাবাসি। এ নিয়ে গ্রামে উত্তেজনা বিরাজ করছে। বকুল নামে এক ব্যক্তিকে সাড়ে তিন লাখ টাকার বিনিময়ে নিয়োগ দেওয়া নিয়ে এই অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। এলাকাবাসির বক্তব্য গ্রামের বেকার ছেলেদের চাকরী না দিয়ে স্কুলের সভাপতি ও প্রধান শিক্ষক টাকার বিনিময়ে ভিন গ্রামের ছেলেকে চাকরী দিয়েছেন।

 

এ নিয়ে এলাকায় ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে। অভিযোগ উঠেছে জনমত উপেক্ষা করে গোপনে চোরকোল গ্রামের বকুল নামে এক ব্যক্তিকে চাকরী দেওয়া হয়। এক পর্যায়ে বংকিরা স্কুলে বিশেষ সভা করে স্কুল ফান্ডে আড়াই লাখ টাকা দেবার সিদ্ধান্ত হয়। এই সভায় সাধুহাটী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কাজী নাজির উদ্দীন উপস্থিত ছিলেন। এখন এই টাকা দিতে অস্বীকার করছেন চাকরী পাওয়া বকুল।

 

মঙ্গলবার গ্রামবাসির পক্ষে স্থানীয় মেম্বর এনামুল হক ডালু বিষয়টি জানতে পেরে স্কুলে তালা ঝুলিয়ে দেন। এ সময় পার্শ্ববর্তী গ্রামের মেম্বর আমিরুল ইসলামও উপস্থিত ছিলেন। মেম্বর এনামুল হক ডালু অভিযোগ করেন, টাকার বিনিময়ে চাকরী দেওয়া হয়েছে। সেই টাকা স্কুল ফান্ডে জমা না হওয়া পর্যন্ত তালা ঝুলানো থাকবে। বিষয়টি নিয়ে বংকিরা স্কুলের সভাপতি শুকদেব কর্মকার ও প্রধান শিক্ষক রবিউল ইসলামের বক্তব্য জানতে ফোন করা হলে তারা ফোন রিসিভ করেন নি।

 

এ ব্যাপারে জেলা শিক্ষা অফিসার মকছেদ আলী জানান, বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। গ্রামবাসি জানিয়েছেন, প্রধান শিক্ষক রবিউল ইসলাম বিভিন্ন সভাপতির সাথে আঁতাত করে শিক্ষক কর্মচারী নিয়োগ দিয়ে লাখ লাখ টাকার বানিজ্য করেছেন। বিষয়টি তদন্ত করে দেখার জন্য এলাকাবাসি দাবী জানিয়েছেন।

Comments are closed.