খুলে দেয়া হচ্ছে ভারতের দীর্ঘতম সেতু

ভারতের দীর্ঘতম সেতুর দ্বার খুলছে শুক্রবার। দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি উত্তর-পূর্ব ভারতের আসামে ব্রহ্মপুত্র নদের ওপর নির্মিত ৯.২ কিলোমিটার দীর্ঘ এ সেতুর উদ্বোধন করবেন।

নরেন্দ্র মোদি নেতৃত্বাধীন সরকারের তিন বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে ‘ঢোলা সাদিয়া’ নামের এই সেতু জনসাধারণের চলাচলের জন্য খুলে দেয়া হচ্ছে। ২০১৪ সালে দেশটির নির্বাচনে ভূমিধস জয়ের পর অগ্রাধিকার ভিত্তিতে হাতে নেয়া মোদি সরকারের কয়েকটি প্রকল্পের একটি ছিল এই সেতুটি।

এক দশক আগে দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের আমলে নির্মাণ কাজ শুরু হলেও বিলম্ব ছাড়াই এই সেতু চালু করতে পারাটাই ছিল মোদি সরকারের জন্য সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। ভারতের দীর্ঘতম এই সেতুর গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য :

>> ব্রহ্মপূত্রের উপনদী লোহিত নদীর ওপর ঢোলা সেতুটি তৈরি করা হয়েছে।

>> আসামের রাজধানী গুয়াহাটি থেকে ৫৪০ কিলোমিটার দূরে সেতুটির অবস্থান।

>> অরুণাচল প্রদেশের রাজধানী ইটানগর থেকে ঢোলা সেতুর দূরত্ব ৩০০ কিলোমিটার।

>> সেতুটি চালু হলে আসাম থেকে অরুণাচল যেতে চার ঘণ্টা সময় সাশ্রয় হবে। অরুণাচলে কোনো বিমানবন্দর নেই।

>> ভারতের দীর্ঘতম এই সেতুর দৈর্ঘ্য প্রায় ৯.২ কিলোমিটার; যা মুম্বাইয়ের বিখ্যাত দীর্ঘতম বান্দা-ওরলি সিলিঙ্ক সেতুর চেয়ে প্রায় ৩০ শতাংশ বেশি দীর্ঘ।

>> সেনাবাহিনীর কাছে কৌশলগত দিক থেকে ব্যাপক গুরুত্ব রয়েছে সেতুটির। এই সেতুর ফলে চীন সীমান্তের অরুণাচল প্রদেশে দ্রুত ও সহজেই পৌঁছাতে সক্ষম হবে ভারতীয় সেনাবাহিনী।

>> ৬০ টন ওজনের যুদ্ধট্যাংক যাতায়াত করতে পারবে ঢোলার ওপর দিয়ে।

>> ভারতের এই অঞ্চলে ঢোলের মতো আর কোনো সেতু নেই; যা ট্যাংক যাতায়াতের জন্য উপযুক্ত।

>> ২০১১ সালে সেতুটির নির্মাণ কাজ শুরু হয়; যখন কংগ্রেস সরকার আসামের ক্ষমতায় ছিল। সেতুটির নির্মাণ ব্যয় প্রায় ৯৫০ কোটি রূপি।

সূত্র : এনডিটিভি।

Comments are closed.