ঝিনাইদহে আধিপত্য বিস্তারে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধসহ ১৫ জন আহত,পুলিশের গুলি

স্টাফ রিপোর্টার,ঝিনাইদহঃ

ঝিনাইদহ সদর উপজেলার বাকড়ি পরানপুর গ্রামে আওয়ামীলীগের বিবাদমান দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে ১৫ জন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে ৯ জনকে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকীরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। এর মধ্যে সেন্টু শেখ, আব্দুল মজিদ, দুলাল ও রাসেল নামে ৫ ব্যক্তি গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

 

বৃহস্পতিবার সকালে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে আওয়ামীলীগ সমর্থিত সাবেক চেয়ারম্যান ফারুকুজ্জামান ফরিদ ও বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল মাসুম গ্রুপের মধ্যে এই সংঘর্ষ হয়। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে প্রথমে লাঠিচার্জ ও পরে টিয়ারশেল এবং ৬ রাউন্ড সর্টগানের গুলি ছোড়ে।

 

পুলিশ ও এলাকাবাসি জানায়, বুধবার হরিশংকরপুর ইউনিয়নের আর্য্যনারায়নপুর গ্রামে ফরিদ ও মাসুম গ্রুপের মধ্যে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে মারামারি হয়। সেই ঘটনার জের ধরে বৃহস্পতিবার বাকড়ি পরানপুর গ্রামে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। পুলিশ জানায়, গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের পর থেকেই ফরিদ ও মাসুম গ্রুপের মধ্যে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বিরোধ চলে আসছে।

 

এদিকে সংঘর্ষের প্রেক্ষিতে সাবেক চেয়ারম্যান ফারুকুজ্জামান ফরিদ ও বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল মাসুমকে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে তলব করে এলাকার আইনশৃংখলা রক্ষার বিষয়ে সতর্ক করে দেওয়া হয় বলে জানা গেছে। ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি হরেন্দ্র নাথ সরকার জানান, সংঘর্ষে সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে ৬ রাউন্ড সট গানের গুলি ছোড়া হয়েছে। এখন পরিস্থিতি ভাল। এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। মারামারিতে উভয় পক্ষের বেশ কয়েকজন কমবেশি আহত হয়েছে।

Comments are closed.