কক্সবাজারে লাখো জনতার সমাবেশ করার প্রস্তুতি আওয়ামী লীগের

ওয়ান নিউজঃ আগামী ৬ মে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভাটি জনসমুদ্র পরিণত করতে চায় কক্সবাজার আওয়ামী লীগ। জনসভাকে সফল করতে ইতোমধ্যে জোর তৎপরতা শুরু করেছেন জেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ। গতকাল পরিদর্শন করে শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামকে জনসভার স্থান হিসাবে প্রাথমিকভাবে নির্ধারণ করা হয়েছে। এই ভেন্যুতে এটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দ্বিতীয় জনসভা। ৬ মে এর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভাটি আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপুর্ণ বলে মনে করছেন বিভিন্ন পেশাজীবী লোকজন।

জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত ৬ মে’র জনসভায় লাখো জনতার সমাগম ঘটাতে চায় আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ। গতকাল প্রধানমন্ত্রীর জনসভার ভেন্যু পরিদর্শন শেষে জানালেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এডঃ সিরাজুল মোস্তফা ও সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান চেয়ারম্যান। নেতৃবৃন্দ বলেন, জনসভা সফল করতে আজ সকাল ১০টায় অনুষ্ঠিত হবে প্রতিনিধি সভা। আজকের প্রতিনিধি সভায় প্রধান অতিথি থাকবেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রিয় সাংগঠনিক সম্পাদক (চট্টগ্রাম বিভাগ) এ কে এম এনামুল হক শামীম। নেতৃবৃন্দ জানান, সুশিল সমাজ ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের জন্য ৮ হাজার আসন(চেয়ার) বরাদ্ধ থাকবে। তৎমধ্যে ৩ হাজার মহিলা ও ৫ হাজার পুরুষ।

মহেশখালী-কুতুবদিয়ার সাংসদ আশেক উল্লাহ রফিক ভেন্যু পরিদর্শন শেষে বলেন, আগামী ৬ মে কক্সবাজারবাসীর জন্য ঐতিহাসিক দিন। নির্ধারিত ভেন্যুটিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দ্বিতীয়বারের মত কক্সবাজারের উন্নয়নের বাণী শোনাবেন। প্রধানমন্ত্রীর হাত দিয়ে কক্সবাজারের পরিবর্তন এসেছে। দেশের বৃহৎ প্রকল্পগুলো কক্সবাজারেই বাস্তবায়িত হচ্ছে। উন্নয়নের জোয়ার বইছে পুরো জেলায়। তাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আগমন কক্সবাজারবাসী উপভোগ করতে চায়। জনসভায় প্রধানমন্ত্রী কক্সবাজারের আরো উন্নয়নের বাণী শোনাবেন।

কক্সবাজার পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক উজ্জ্বল কর জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রীর জনসভা সফল করতে পৌর আওয়ামী লীগ জোর তৎপরতা শুরু করেছে। উন্নয়নের নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত কক্সবাজারবাসী।

এদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভাকে কক্সবাজার আওয়ামী লীগের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপুর্ণ বলে জানিয়েছেন বিভিন্ন পেশাজীবী লোকজন। কক্সবাজার সিটি কলেজের অধ্যাপক মোহাম্মদ হাসেম জানিয়েছেন, ৬ মে’র জনসভাটি আওয়ামী রাজনীতির জন্য ইতিবাচক। আর দেড় বছর পরেই অনুষ্টিত হবে জাতীয় সংসদ নির্বাচন। নির্বাচনের আগে রাজনৈতিক ব্যস্ততার জন্য প্রধানমন্ত্রী কক্সবাজার জেলা শহরে জনসভা করার সময় নাও পেতে পারেন। তাই এই জনসভাটি আগামী জাতীয় নির্বাচনের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপুর্ণ। প্রধানমন্ত্রীর জনসভা থেকে নির্বাচনের দিক নির্দেশনা আসতে পারে।

কক্সবাজার জেলা জজকোর্টের আইনজীবী এডঃ শেখ কামাল জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এই জনসভার মধ্যদিয়ে কক্সবাজারে নির্বাচনী আবহ সৃষ্টি হবে। তাই জনসভায় ব্যাপক জনসমাগম হবে। মানুষ প্রধানমন্ত্রীর মুখ থেকে আরো উন্নয়ন ও দিক নির্দেশনা শুনতে চায়।

কক্সবাজার শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম পরিদর্শনকালে আরো উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শাহ আলম চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা ইউনুচ বাঙ্গালী, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হামিদা তাহের, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক উজ্জল কর, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি রহিম উদ্দিন, কুতুবজুমের চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন খোকন, পৌর আওয়ামী লীগ নেতা এ বি ছিদ্দিক খোকন, মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী ম.ম আহমদ ও জেলা ছাত্রলীগ নেতা হালিমুর রশিদ।

Comments are closed.