রিমান্ড শেষ, শাহাবুদ্দীন নাগরীর মামলা ডিবিতে

 ওয়ান নিউজঃ প্রেমিকার স্বামী হত্যা মামলায় সাবেক রাজস্ব কর্মকর্তা ও কবি শাহাবুদ্দীন নাগরীর দুই দফায় নয় দিনের রিমান্ড শেষ হয়েছে বৃহস্পতিবার। অধিকতর তদন্তের জন্য মামলাটি গোয়েন্দা পুলিশতে (ডিবি) হস্তান্তরের নির্দেশ দিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মো. আসাদুজ্জামান মিয়া।

ডিএমপির গণমাধ্যম ও জনসংযোগ শাখার উপ কমিশনার (ডিসি-মিডিয়া) মাসুদুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, মামলাটি অধিকতর তদন্তের জন্য কমিশনার এ নির্দেশ দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার শাহাবুদ্দীন নাগরী ও নুরানী আক্তার সুমীর দ্বিতীয় দফার রিমান্ড শেষ হয়েছে। শুক্রবার আদালতে তোলা হবে আসামিদের। সেখান থেকে ডিবির তদন্ত কর্মকর্তারা মামলা বুঝে নেবেন। তারা প্রয়োজন মনে করলে আসামিদের ফের রিমান্ড আবেদন করবেন।

এদিকে রমনা বিভাগের উপ কমিশনার (ডিসি) মারুফ হোসেন সরদার জানান, মামলাটি ডিবিতে হস্তান্তর করার নির্দেশ দিয়েছেন পুলিশ কমিশনার। আমরা রিমান্ড শেষ হওয়ায় শুক্রবার আসামিদের আদালতে উপস্থাপন করব। সেখান থেকে পরবর্তী কার্যক্রমের জন্য মামলার যাবতীয় নথি ডিবিকে হস্তান্তর করা হবে।

পরবর্তী করণীয় কি তা ডিবি সিদ্ধান্ত নেবে।

এদিকে তদন্ত সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানিয়েছে, নুরুল ইসলামকে হত্যার দায় অস্বীকারে অনড় রয়েছেন শাহাবুদ্দীন নাগরী। তবে সুমী হত্যার দায় স্বীকার করেছে। কিন্তু তদন্ত কর্মকর্তারা তাদের বক্তব্যে বিশ্বাস করতে পারছেন না। সুমীর বক্তব্যকে শাহাবুদ্দীন নাগরীসহ অন্য কাউকে বাঁচানোর চেষ্টা হিসেবেই দেখছেন তারা।

জানা গেছে এই হত্যার ঘটনায় শাহাবুদ্দীন নাগরীর বন্ধুদের মধ্যে আরো চার জনকে চিহ্নিত করে নজরদারিতে রাখা হয়েছে। তবে তদন্তের স্বার্থে তাদের সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ করতে রাজি হননি মামলার বর্তমান তদন্ত কর্মকর্তা (আইও) নিউমার্কেট থানায় পরিদর্শক (তদন্ত) মতলুবুর রহমান। তিনি জানান উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়া হবে।

নিউমার্কেট থানায় দায়ের করা কাজী নুরুল ইসলাম মামলায় গ্রেফতার হওয়া কবি শাহাবুদ্দীন নাগরী ও তার প্রেমিকা নুরানী আক্তার সুমীর প্রথম দফায় পাঁচদিনের রিমান্ড শেষে আদালতের মাধ্যমে দ্বিতীয় দফায় চারদিনের রিমান্ডে আনে তদন্ত কর্মকর্তা।

গত ১৩ এপ্রিল নিউমার্কেট থানাধীন এলাকার এলিফ্যান্ট রোডের ১৭০/১৭১ ডোম-ইনো অ্যাপার্টমেন্টে ব্যবসায়ী নুরুল ইসলামকে তার নিজের শয়নকক্ষের মেঝেতে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে পরেরদিন ১৪ এপ্রিল নুরুল ইসলামের বোন শাহানা রহমান কাজল ভিকটিমের স্ত্রী ও স্ত্রীর বন্ধু শাহাবুদ্দীন নাগরীসহ অজ্ঞাতনামা কয়েকজনের নামে নিউমার্কেট থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। ওই মামলায় কবি শাহাবুদ্দীন নাগরী এজাহারভুক্ত দুই নম্বর আসামি।

Comments are closed.