পাঁচ ফুটবলারকে মুক্ত করে দিয়েছে বাফুফে

ওয়ান নিউজ ক্রীড়া ডেক্সঃ গেল ফুটবল মৌসুমে প্রিমিয়ার লিগ জয়ী আবাহনী লিমিটেডের হয়ে খেলেছিলেন আরিফুল ইসলাম, শাকিল আহমেদ, হেমন্ত ভিনসেন্ট বিশ্বাস, তপু বর্মন ও জুয়েল রানা। আসছে মৌসুমের জন্য দল বদলে এই পাঁচ ফুটবলার পাড়ি জমান সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবে। যে দলটি এবারই প্রথম প্রিমিয়ারে উঠে এসেছে। কিন্তু দলবদল সারলেও একটা খটকায় পড়ে গিয়েছিলেন আরিফুল-হেমন্তরা। আবাহনী ক্লাবের অভিযোগ দলটির সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই সাইফের সঙ্গে চুক্তি করেছেন তারা। একারণে এক মৌসুমের জন্য তাদের নিষিদ্ধ করার দাবিতে বাফুফে বরাবর আবেদন করে আবাহনী কর্তৃপক্ষ। তবে পুরোনো ক্লাবের অভিযোগ বিধিসম্মত না হওয়ায় সেই পাঁচ ফুটবলারকে মুক্ত করে দিয়েছে বাফুফের প্লেয়ার্স স্ট্যাটাস কমিটি। রোববার কমিটির বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সোমবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে বাফুফে।

প্রিমিয়ার ডিভিশন ফুটবল লিগ দিয়েই মূলত সর্বশেষ ঘরোয়া ফুটবল মৌসুম শেষ হয়েছে। অন্য ক্লাবগুলো বসে থাকলেও আবাহনীকে অবশ্য এএফসি কাপে ব্যস্ত সময় কাটাতে হচ্ছে। এরই মধ্যে তিনটি ম্যাচ খেলে ফেলেছে দলটি। এএফসি কাপের মিশন শুরুর আগে কোচ দ্রাগো মামিচের অধীনে ক্যাম্প করতে গিয়েই বাঁধে জটিলতা। সাইফের সঙ্গে চুক্তি করে ফেলায় আবাহনীর ডাকা ক্যাম্পে যোগ দেওয়া থেকে বিরত থাকে ওই পাঁচ ফুটবলার। যেকারণে তাদের বিরুদ্ধে শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ আনে আবাহনী। একই সঙ্গে এই পাঁচ ফুটবলারকে ছাড়াই এএফসি কাপের ক্যাম্প শুরু করে আবাহনী। যদিও আরিফুল-হেমন্তরা পরে ক্যাম্পে যোগ দিতে চেয়েছিলেন।

রোববার বাফুফের নেওয়া সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে এই অভিযুক্ত পাঁচ ফুটবলারের সাইফ স্পোর্টিংয়ে খেলতে আর বাঁধা নেই। এর আগে গেল ফুটবল মৌসুমের শুরুতেও দলবদল নিয়ে প্রায় একই রকম জটিলতায় পড়েছিলেন আট জন শীর্ষ ফুটবলার। যাদেরকে নিজেদের দাবি করে আদালতের শরণাপন্নও হয়েছিল শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব। আদতে ফুটবলের মৌসুমের নির্দিষ্ট কোন সূচি না থাকায় এই জটিলতা চলে আসছে। কিছু দিন আগে সমস্যা নিরসনে অবশ্য ফুটবলের মৌসুমের সুনির্দিষ্ট সীমা নির্ধারণ করে দিয়েছে বাফুফে।

Comments are closed.