চাঁদাবাজির অভিযোগে চবি’র ৪ ছাত্রলীগ কর্মী বহিষ্কার

চট্রগ্রাম প্রতিনিধিঃ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের চার কর্মীকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। তাদের বিরুদ্ধে বহিরাগত হাটহাজারী কলেজের তিন ছাত্রের কাছ থেকে ছিনতাই ও চাঁদাবাজির অভিযোগে প্রমাণিত হওয়ায় এ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

বহিষ্কৃতরা হলেন ইংরেজি বিভাগের ২০১৪-১৫ সেশনের মাহমুদুল হাসান, ইতিহাস বিভাগের ২০১৩-১৪ সেশনের নাহিদ আলম, একই বিভাগের ২০১৫-১৬ সেশনের সোহেল মিয়া এবং আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিটিউটের ২০১৫-১৬ সেশনের ইফতেখার উদ্দীন রিয়াজ। তারা সবাই ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদিক এস এম ফজলে রাব্বী সুজনের অনুসারী হিসেবে পরিচিত।

মঙ্গলবার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আলী আজগর চৌধুরী এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, হেলথ, রেসিডেন্স ও ডিসপ্লিনারি কমিটির সুপারিশে উপাচার্য তার নির্বাহী ক্ষমতাবলে এ বহিষ্কার আদেশ প্রদান করেন। এছাড়া কেন তাদের স্থায়ী বহিষ্কার করা হবে না এই মর্মে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, এখন থেকে বহিরাগত কেউ ক্যাম্পাসে আসলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। পাশাপাশি বহিরাগত কোনো গাড়ি বা মোটরসাইকেল ঢুকলে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্যাম্পাসে বহিরাগতদের কাছ থেকে ছিনতাই ও জিম্মি করে চাঁদা আদায়ের ঘটনা অনেকাংশেই বৃদ্ধি পেয়েছে।

ছাত্রলীগের পরিচয়ে দিয়েই এসব অপরাধ ঘটানো হচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় গতকাল ক্যাম্পাসে হাটহাজারী কলেজের তিন ছাত্র ক্যাম্পাসে ঘুরতে এলে তাদের কাছ থেকে মোবাইল ও ক্যামেরা ছিনতাই করে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে বহিষ্কৃত চার ছাত্রলীগ কর্মী। পরে ভুক্তভোগীরা প্রক্টর অফিসে লিখিত অভিযোগ করেন।

Comments are closed.