ভুবনেশ্বরের ডেথ বোলিংয়ে জেতা ম্যাচে প্রিতিদের হার

ওয়ান নিউজ ক্রীড়া ডেক্সঃ ডেথ ওভারে গেলবার মোস্তাফিজুর রহমানের জুটি ছিলেন ভুবনেশ্বর কুমার। ভারতীয় ফাস্ট বোলার মহাগুরুত্বপূর্ণ এই সময়ে আগেরবার বেশ কিছু শিখেছেন ফিজের কাছ থেকে জানিয়েছিলেন একবার। এবারও ফিজকে ছাড়া মাঠে নেমে পড়ল সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ। শেষে ম্যাচে এমন পরিস্থিতি যে সেই ডেথ ওভারেই ভুবনেশ্বর রোমাঞ্চকর এক জয় এনে দিলেন বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের।

সোমবার রাতের দ্বিতীয় ম্যাচে শেষ দুই ওভারে জিততে ১৬ দরকার কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের। ৭ উইকেটে ১৪৪ রান তখন। নিজেদের মাঠ রাজিব গান্ধী স্টেডিয়ামে দলকে প্রায় হেরে যাওয়া ম্যাচ জিতিয়ে নায়ক পেসার ভুবনেশ্বর। ক্যারিয়ারসেরা (৪-০-১৯-৫) টি-টুয়েন্টি বোলিংয়ে দলকে জয়ে ফেরালেন ভুবনেশ্বর। বলিউড সুপারস্টার প্রিতির দল আরো ওপরে ওঠার সুযোগ হারাল। ম্যাচে পেছন থেকে উঠে আসা ৫ রানের নখ কামড়ানো জয়ে সানরাইজার্স শিরোপা ধরে রাখার প্রবল প্রত্যয়টাও জানিয়ে রাখল। ১৯.৪ ওভারে ১৫৪ রানে অল আউট কিংসরা।

ঘরের মাঠে টস হেরে সানরাইজার্স আগে ব্যাট করল। অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার গেলবারের মুডে ফিরলেন। ৫৪ বলে ৭টি চার ও ২টি ছক্কায় অস্ট্রেলিয়ান ওপেনার করেছেন ৭০ রান। এছাড়া নামান ওঝার ২০ বলে ৩৪ রান সানরাইজার্সকে এনে দেয় মোটামুটি লড়ার মতো একটা পুঁজি। ৬ উইকেটে ১৫৯ রান। জেতার মতো রান নিশ্চিত করে বলার উপায় কোথায়!

ইনফর্ম কিংসদের কাছে এরপর প্রায় হেরেই যাচ্ছিল চ্যাম্পিয়নরা।। কিন্তু শেষের নাটকীয়তায় ওপেনার মনন ভোহরার ৫০ বলে ৯ চার ও ৫ ছক্কার ৯৫ রানের ইনিংসও বাঁচাতে পারল না গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের দলকে। ১৯তম ওভারে ২টি উইকেট তুলে নিয়ে ভুবনেশ্বর ম্যাচটার মোড়ই ঘুরিয়ে দিলেন। এমন শ্বাসরুদ্ধকর খেলায় সানরাইজার্স নিজেদের মাঠেই ভক্তদের ফিরিয়ে দিল শিরোপা ধরে রাখার প্রতিশ্রুতি।

১৯তম ওভারে ভুবনেশ্বর এলেন তার কোটা পূরণ করতে। সাথে দলকে বাঁচানোর শেষ চেষ্টাও করতে। ভোহরা তখন ৯৫ রানে দাঁড়িয়ে দলকে জেতাতে। আর কারিপ্পার প্রয়োজন তাকে সমর্থন দেওয়ার। কিন্তু ওই ওভারের প্রথম বলে কারিপ্পা (১) আউট। এক বল পরই প্রিতিদের শেষ ভরসা ভোহরা এলবিডাব্লিউর শিকার হয়ে গেলেন। ২ উইকেট নিয়ে এই ওভারে ৫ রান দিয়ে ম্যাচটা সানরাইজার্সের করে দিয়েছেন ভুবনেশ্বর।

শেষ ওভারে ১১ রান। জিততে। হতেই পারে। কিন্তু শেষ উইকেট জুটিটা ভেঙে ম্যাচের একমাত্র উইকেট শিকার করে এবারের আসরে নিজের প্রথম ম্যাচ খেলতে নামা পেসার সিদ্ধার্থ কাউল শেষ করে দেন প্রতিপক্ষকে। ২৬ রানের বিনিময়ে একটি উইকেট। কিন্তু ওই একটি মূল্যবান দারুণ। তবে বীরোচিত কাণ্ড-কীর্তিতে শেষটায় ম্যাচে ফল বদলে দেওয়া ভুবনেশ্বরই ম্যান অব দ্য ম্যাচ।

Comments are closed.