অদ্ভুত রান আউটে চান্দিমালের বিদায়

ওয়ান নিউজ ক্রীড়া ডেক্সঃ ভাগ্য কখনো কখনো দারুণ কাজে আসে। যেমন কলম্বোতে তৃতীয় উইকেটটা টাইগাররা স্রেফ ভাগ্যের জোরেই পেল। বিপজ্জনক দিনেশ চান্ডিমালকে (২১) ফেরানো গেছে রান আউটে। বাংলাদেশের সিরিজ জয়ের এই ম্যাচে টাইগারদেরে শুরুতে খুব মারছিল শ্রীলঙ্কা। ১-০ তে পিছিয়ে তারা। এই ম্যাচ হারলে সিরিজ হার প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের বিপক্ষে। তা এড়াতে উদ্বোধনী ম্যাচে ৭৬ রানের জুটি গড়ে ফেলেছিল লঙ্কানরা দ্রুতভ। কিন্তু মেহেদী ও তাসকিনের জোড়া আঘাতে কিছুটা স্বস্তি আসে। কিন্তু আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান কুশল মেন্ডিসকে নিয়ে চান্ডিমাল ভয় দেখাচ্ছিলেন। এই রিপোর্ট লেখার সময় একটু হলেও লঙ্কানরা চাপে। টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ২৭ ওভারে ৩ উইকেটে ১৪০ রান তাদের। কুশল ৩৩ ও মিলিন্দা সিরিওয়ার্দানে ১ রানে ব্যাট করছেন।

বাংলাদেশের কাছে সিরিজ হারার রেকর্ড নেই শ্রীলঙ্কার। দেশের মাটিতে গেলটি নিয়ে মাত্র দুটি ম্যাচ তারা হেরেছে টাইগারদের কাছে। কিন্তৃ দ্বতীয় ম্যাচে ৩১১ রান করেও বৃষ্টির কারণে হতাশায় ডুবতে হয়েছে। ডাম্বুলায় প্রথম দুই ম্যাচের পর ৩ ওয়ানডে সিরিজের ম্যাচটি চলছে কলম্বোর সিংহলিজ ক্রিকেট মাঠে। যেখানে ৬ বছর পর আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ফিরেছে। তার আগে মাঝের লিস্ট এ ম্যাচগুলো ছিল লো স্কোরিং।

কিন্তু এই ম্যাচে টস হেরে ঠিক যেন আগের ম্যাচে ব্যাটিং যেখানে শেষ করেছিল সেখান থেকে শুরু করলো শ্রীলঙ্কা। সিরিজ ড্র করতে মরিয়া লঙ্কানরা শুরু থেকে মেরে খেলতে শুরু করে। বৃষ্টির শঙ্কা আছে ম্যাচে। এমনিতে বৃষ্টির প্রভাবে খেলা শুরু হয়েছে আধঘণ্টা পর। তাই দ্রুত বড় রানের দিকে চোখ বলেই এক ওভারে কাটার মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমানকেও দিতে হয় ১৪ রান। অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার সাথে এদিন নতুন বলে ইনিংস ওপেন করেছেন মুস্তাফিজ। সুবিধা হয়নি। প্রথম পাওয়ার প্লের ১০ ওভারে মাশরাফি ৩ ওভারে ১৯, মোস্তাফিজ সমান ৩ ওভারেই ২৫, মেহেদী হাসান মিরাজ ২ ওভারে ১৬, মাহমুদউল্লাহ ১ ওভারে ৫ রান দিলেন।

তার মানে প্রথম ১০ ওভারে ৫ বোলার ব্যবহার করেছেন মাশরাফি। ঠেকাতে পারেননি দানুসকা গুনাথিলাকা ও অধিনায়ক উপুল থারাঙ্গাকে। ১০ ওভারে ৭৬ রান এনে দিয়ে দলকে অসাধারণ শুরু দিয়েছেন তারা।

কিন্তু বাংলাদেশ ১১তম ওভারে প্রথম আঘাতটা হানে। এই সিরিজেই ওয়ানডে অভিষিক্ত মেহেদী নিজের তৃতীয ওভারের পঞ্চম বলে স্বস্তি আনেন উজ্জীবিত টাইগার ডেরায়। দারুণ খেলতে থাকা গুনাথিলাকা অবশ্য ৩৪ রান করে উইকেটটা বিলিয়েছেন স্বস্তায়। লোভনীয় বল পেয়ে তুলে মেরেছিলেন। উইকেট স্লো বলেই হয়তো যা চেয়েছিলেন তা হয়নি। সহজ ক্যাচ মাহমুদউল্লার। উইকেট মেডেন এই পরিস্থিতিতে!

বাংলাদেশ একাদশ :

তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান, মাহমুদউল্লাহ, মোসাদ্দেক হোসেন, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মাশরাফি বিন মুর্তজা, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদ।

শ্রীলঙ্কা একাদশ : দানসুকা গুনাথিলাকা, উপুল থারাঙ্গা (অধিনায়ক), কুশল মেন্ডিস, দিনেশ চান্ডিমাল, আসেলা গুনারত্নে, মিলিন্দা সিরিওয়ার্দানে, থিসারা পেরেরা, দিলরুয়ান পেরেরা, সুরঙ্গা লাকমাল, নুয়ান কুলাসেকারা, সিকুগে প্রসন্ন।

Comments are closed.