‘অশুভ ইচ্ছা পূরণের জন্য কাজ করছে সরকার’

ওয়ান নিউজঃ কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে এক ধরনের অশুভ ইচ্ছা পূরণে সরকার ও সরকার দলীয় লোকজন কাজ করছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ।

মঙ্গলবার রাজধানী নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচন সামনে রেখে মন্ত্রী- এমপিরা নির্বাচনী আচারণবিধি লঙ্ঘন করছেন। স্থানীয় মন্ত্রী ও তার মেয়ে নির্বাচনের এলাকা ঘেষে সমাবেশ করছেন, যাতে বক্তব্য ভোটাররা শুনতে পারে। এমনকি বঙ্গবন্ধু ও শেখ সেলিমে পোস্টার টানানো হয়েছে, যা নির্বাচনী আচারণবিধি লঙ্ঘন।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সেনা মোতায়নের বিষয়ে আমরা পরে আপনাদের অবহিত করবো। তবে কুসিক নির্বাচনে প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে সিসি ক্যামেরা লাগানোর জন্য সোমবার আমরা সিইসি কে এম নুরুল হুদাকে বলেছি। প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে সিসি ক্যামেরা লাগানো সম্ভব না হলেও, যে ৪৩টি ভোট কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ, সেগুলোতে লাগাতে হবে।

পুলিশ ও স্থানীয় সন্ত্রাসীদের কর্তৃক কুসিক নির্বাচনে বিএনপির মনোনীত প্রার্থীর সমর্থকদের ভয়ভীতি প্রদর্শন অব্যাহত রয়েছে বলেও অভিযোগ করেন রিজভী।

তিনি বলেন, নির্বাচনী পরিবেশ এবং সিইসি’র বক্তব্যের মধ্যে কোনো মিল নেই। তবুও আমরা আশা করছি, কুসিক নির্বাচন সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণ এবং ভোটাদের নির্ভয়ে ভোট প্রদানের পরিবেষ নিশ্চিত করতে সিইসি তার প্রতিশ্রুতি রক্ষা করবেন।

চীনের কাছ থেকে দুটি সাবমেরিন কিনে প্রধানমন্ত্রী এখন বিপাকে মন্ত্রী করে বিএনপির মুখপাত্র বলেন, ভারতের ধারণা, শেখ হাসিনার ওপর চীনের প্রভাব বৃদ্ধি পাচ্ছে। ভারত তার পরীক্ষিত বন্ধুর এ ধরণের বিচ্যুতিতে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে। তাই ভারত এখন শেখ হাসিনার ওপর থেকে চীনের প্রভাব কাটাতেই প্রতিরক্ষা চুক্তি করার জন্য পীড়াপীড়ি করছে। প্রধানমন্ত্রী চারিদিকে খেলতে গিয়ে এ ধরণের হোঁচট খাবেন তা তিনি আগে ভাবতে পারেননি।

রিজভী বলেন, ভারত বর্তমান সরকারের ক্ষমতায় থাকার উৎস। আর তারা যদি বেঁকে বসেন তাহলে বাংলাদেশ সরকারের জন্য তা মহা উদ্বেগ ও মহা দুশ্চিন্তার বিষয়। তাই বন্ধুকে খুশি রাখতে শেখ হাসিনা প্রতিরক্ষা চুক্তি করতে ‘সুপার হিউম্যান স্পিডে’ এগিয়ে যাচ্ছেন।

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, বাংলাদেশকে কাশ্মীর বানাবেন না। নিজের ক্ষমতায় টিকে থাকার স্বপ্নসাধকে বাস্তবায়ন করতে গিয়ে প্রতিরক্ষা চুক্তির মাধ্যমে বাংলাদেশের মানুষের ভাগ্যকে ভারতের জিম্মায় তুলে দিবেন না।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন বিএনপি নেতা এ জেড এম জাহিদ হোসেন, আবুল খায়ের ভূইয়া, আব্দুস সালাম আজাদ, তাইফুল ইসলাম টিপু, মুনির হোসেন প্রমুখ।

Comments are closed.