ঝিনাইদহে পারিবারিক বিরোধে চাচাকে হত্যার দায়ে ভাতিজার যাবজ্জীবন

স্টাফ রিপোর্টার,ঝিনাইদহঃ

চাচাকে হত্যা মামলায় ভাতিজা রাজুকে (২২) যাবজ্জীবন কারাদ-দিয়েছেন আদালত। বুধবার দুপুরে জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক রেজা মো. আলমগীর হাসান এ রায় ঘোষণা করেন।রায় ঘোষণার সময় রাজু আদালতে উপস্থিত ছিলেন। দন্ডপ্রাপ্ত রাজু ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডুু উপজেলার এক নম্বর ভায়না ইউনিয়নের বাকচুয়া গ্রামের শহীদ বিশ্বাসের ছেলে।

 

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৩ সালের ৯ এপ্রিল সকালে কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) থানার হাতিয়া পান বাজারে পান বিক্রি করতে যান রাজুর চাচা আলতাফ হোসেন। পারিবারিক বিরোধের জের ধরে রাজু পান হাটে প্রকাশ্যে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে চাচাকে হত্যা করে। পরে স্থানীয়রা রাজুকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে।

 

এ ঘটনায় নিহত আলতাফের স্ত্রী শেফালী বাদী হয়ে কুষ্টিয়ার ইবি থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। পরে পুলিশ রাজুর বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট প্রদান করেন। পুলিশ প্রতিবেদন, শুনানি ও সাক্ষ্য গ্রহন শেষে অপরাধ প্রমানিত হওয়ায় আদালত এ রায় দেন।

 

কুষ্টিয়া আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) অনুপ কুমার নন্দী জানান, পারিবারিক বিরোধে রাজুর চাচা আলতাফ হোসেন এবং চাচী শেফালী প্রায়ই অকথ্য ভাষায় রাজুর মা আনজেলাকে গালিগালাজ ও নির্যাতন করতেন। এ ঘটনায় গ্রাম্য সালিশ চলার সময় চাচা আলতাফ হোসেন রাজুর মাকে চরিত্রহীনা বলে অপবাদ দিয়েছিলেন। এতে রাজু ক্ষিপ্ত হয়ে চাচাকে হত্যা করে। এ রায়ে নিহতের স্ত্রী ও মামলার বাদী শেফালী সন্তোষ প্রকাশকরেছেন বলে জানান তিনি।

Comments are closed.