আগামী নির্বাচন নিয়ে সংশয় আছে: ফখরুল

ওয়ান নিউজঃ জাতীয় সংসদ নির্বাচন হবে কি, হবে না- সে বিষয়ে সংশয় প্রকাশ করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, নির্বাচনের বিষয়টি এখনো নিশ্চিত নয়।

বুধবার রাজধানীর শেরে বাংলায় চন্দ্রিমা উদ্যানে রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সমাধিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ মন্তব্য করেন।

প্রধানমন্ত্রীর নৌকায় ভোট চাওয়ার ব্যাপারে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাব তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নৌকার পক্ষে ভোট চাওয়াই প্রমাণ করে দেশে গণতন্ত্র নেই। সরকারি সব সুযোগ-সুবিধা ভোগ করে জনসভা করছেন। রাষ্ট্রের অর্থায়নে হেলিকপ্টার ব্যবহার করে নৌকা মার্কায় ভোট চাচ্ছেন, ক্যাম্পেইন করছেন। আর বিরোধীদলকে সভা-সমাবেশের অনুমতি না দিয়ে বন্দি করে রাখছেন। প্রধানমন্ত্রী গায়ের জোরে নির্বাচনী প্রচার করছেন বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

জিয়া পরিষদের ৩০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সরকার রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে জঙ্গিবাদকে ব্যবহার করছে। জঙ্গিবাদের প্রচারণা চালিয়ে বাংলাদেশকে জঙ্গিবাদ দেশে পরিণত করতে চাচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্র ও ‘র’ মাধ্যমে বিএনপির ক্ষমতায় এসেছিল- প্রধানমন্ত্রীর এ বক্তব্য সম্পর্কে জানতে চাইলে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, প্রধানমন্ত্রী প্রায় ভিত্তহীন কথা বলেন। এটা তার স্বভাবে পরিণত হয়েছে। সুতরাং প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে অসত্য, মিথ্যা ও বানোয়াট।

প্রধানমন্ত্রীর কাছে প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, আপনি কী প্রমাণ করতে চাচ্ছেন, ভারতের ‘র’ এবং যুক্তরাষ্ট্রের মাধ্যমে বাংলাদেশে নির্বাচন হয়। কিন্তু দেশের মানুষ দেখেছে ২০০১ সালে নির্বাচন ছিল অবাধ ও সুষ্ঠু। আর ২০১৪ সালে ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে আপনাদের ১৫৪ জন প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছে। তাহলে কি আপনারা ভারতের ‘র’ এবং যুক্তরাষ্ট্রের মাধ্যমে ক্ষমতায় বসে আছেন। এমন প্রশ্ন উঠতেই পারে।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে বিএনপির মহাসচিব বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফর ফলপ্রসূ করতে হলে তিস্তা চুক্তির সমস্যার সমাধান করতে হবে। শুধু তিস্তা নয়, ৫৪ টি নদীর সমস্যার সমাধান করতে হবে। তিস্তা চুক্তি ছাড়া অন্য কোনো চুক্তি হলে সেটা অর্থবহ হবে না।

Comments are closed.