চট্টগ্রামে পাহাড় কেটে কলাগাছ রোপন!

চট্রগ্রাম প্রতিনিধিঃ স্কেভেটর দিয়ে কাটা হয় পাহাড়। সেই পাহাড়ে কলা গাছের টুকরা প্রতীকী আকারে রোপন করা হয়। দেখে বুঝার উপায় নেই যে, কিছুক্ষণ আগে এখানে পাহাড় কাটা হয়েছে। চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার ৩ নং মির্জাপুর ইউনিয়নের চারিয়া গ্রামের কাজী পাড়ার পশ্চিমের টিলা কাটে পরিবেশ বিধ্বংসী দুস্কৃতিকারীরা।

মঙ্গলবার বিকালে ভ্রাম্যমাণ আদালত সরেজমিন গিয়ে পাহাড় কাটা অবস্থায় দেখতে পান। এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত দেখে স্কেভেটর রেখে পালিয়ে যায় চালক। পরে ঘটনাস্থলেই স্কেভেটর জব্দ করে স্থানীয় জনপ্রতিনিদের উপস্থিতিতে ধ্বংস করা হয়। হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ রুহুল আমীন এ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।

এর আগে গত ৩ ডিসেম্বর হাটহাজারীর উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডে এলাকায় পাহাড় কেটে গাছ দিয়ে ঢেকে রাখা হয়েছিল। তখনও একটি স্কেভেটর জব্দ করা হয়। এ ব্যাপারে পরিবেশ অধিদপ্তরে লিখিত অবহিত করা হলেও কোনো প্রতিকার মিলেনি বলে জানা যায়।
হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ রুহুল আমীন বলেন, ‘গোপন সংবাদ পাই যে, চারিয়া গ্রামের কাজী পাড়ার পশ্চিমে পাহাড় কর্তন করা হচ্ছে। সরেজমিন গিয়ে দেখা যায় দুস্কৃতিকারীরা পাহাড় কেটে সেই কাটা অংশে কলা গাছের টুকরা প্রতীকী এমনভাবে রোপণ করেছে, যাতে পাহাড় কাটা বুঝা না যায়। পাহাড় কাটা অবস্থায় ভ্রাম্যমাণ আদালত দেখেই স্কেভেটর রেখে চালক পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থলে স্কেভেটর জব্দ করে স্থানীয় জনপ্রতিনিদের উপস্থিতিতে ধ্বংস করা হয়।’

Comments are closed.