কক্সবাজার সদর মডেল থানার এস আই আবুল কালাম চট্রগ্রাম রেঞ্জের বেস্ট অফিসার নির্বাচিত

জাহাঙ্গীর আলম, স্টাফ রিপোর্টার,

চট্রগ্রাম রেঞ্জের পুলিশ সদস্যদের মধ্যে বেস্ট অফিসার নির্বাচিত হয়েছেন কক্সবাজার সদর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক আবুল কালাম। গেল এক বছরে অস্ত্র ও মাদক উদ্ধার, গ্রেফতারী পরোয়ানা তামিল ও হত্যা মামলা অপারেশন তদন্তে সফলতার জন্য তিনি এই পুরস্কারে ভূষিত হন। গত ১৮ই মার্চ শনিবার দুপুরে চট্রগ্রাম ডিআইজি অফিস কার্যালয়ের কনফারেন্স হলে রেঞ্জের ডিআইজি শফিকুল ইসলামের হাত থেকে তিনি এ পুরুস্কার গ্রহণ করেন। কক্সবাজার সদর মডেল থানা সুত্রে জানা যায়, উপ-পরিদর্শক আবুল কালাম গত এক বছরে ২০৫টি ওয়ারেন্ট তামিল, ক্লুলেস মার্ডার মামলা ৪টি, অস্ত্র উদ্ধার ১২টি, মাদক, ইয়াবা, বাংলা মদ, গাঁজাসহ আটকের ঘটনায় ১৮টি মামলা করেন।

তিনি চট্রগ্রামের খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গা থানার চেয়ারম্যান পাড়ার মোঃ হাবিল মিয়া ও মালেকা বেগমের ৬ ছেলে-মেয়ের মধ্যে ৩য় ছেলে এস আই আবুল কালাম। তিনি ২০০৯সালে বাংলাদেশ পুলিশে যোগদান করেন এবং গত ২০১৫সালের আগষ্ট মাসে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় যোগদান করেন। তিনি শুরু থেকেই রাত দিন পরিশ্রম করে এ সম্মান অর্জন করেন। অত্যন্ত সুনামের সহিত বর্তমানে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় এসআই পদে কর্মরত আছেন। অনুষ্টানে চট্রগ্রাম রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি সাখাওয়াত হোসেন ও কুসুম দেওয়ানসহ ১১ জেলার পুলিশ সুপার ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপারগণ উপস্থিত ছিলেন। এসআই আবুল কালাম জানান, এ পুরস্কার প্রাপ্তি আমার দায়িত্ব কর্তব্যকে অনেক গুণ বাড়িয়ে দিয়েছে। সেই সাথে এ পুরস্কার পেছনে আমার পরিবার ও সদর মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ আসলাম হোসেন, ওসি তদন্ত বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী, ওসি (অপারেশন) মাঈন উদ্দিন, অপারেশন অফিসার আবদুর রহিম, এসআই মানষ বড়ুয়াসহ থানা ও সকল সহকর্মীদের আন্তরিকতা ও কৃতজ্ঞতা জানাই।

সকলের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। আগামীতেও সকলের সহযোগিতা ও দোয়া কামনা করছি। এদিকে কক্সবাজার সদর মডেল থানার (ওসি তদন্ত) বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, মাদক ও অস্ত্র উদ্ধারসহ অপরাধীদের গ্রেফতারের জন্য চট্রগ্রাম রেঞ্জে বেস্ট অফিসার বেস্ট অফিসার হিসেবে কক্সবাজার মডেল থানার উপ-পরিদর্শক আবুল কালাম নির্বাচিত হওয়ায় খুশি মডেল থানার পরিবার। তিনি আরো বলেন, তাঁর এই সফলতা দেখে অত্র থানার অন্যান্য অফিসাররাও উৎসাহিত হবে। পাশাপাশি এসআই আবুল কালামের মতো সম্মানসূচক পুরস্কার পেতে অন্যান্য অফিসাররাও কাজ করে যাবে।

Comments are closed.