ইয়াবা নিয়ে ধরা খেয়ে দুই ছেলে জেল হাজতে, অধরা মৌলভী হাসেম

# পাচার কাজে ব্যবহার করছে ছেলেদের
# পরিবারের দুই সদস্য ইয়াবাসহ আটক
# আইনশৃংখলা বাহিনীর নজরদারি নেই
# ইয়াবার আগ্রাসনে স্থানীয় যুবকেরা
# এলাকায় খুচরা বিক্রী করছে ইয়াবা

বার্তা পরিবেশকঃ
রামুর গর্জনিয়া জুমছড়ির দক্ষিন পাড়ার মৌলভী হাসেমের দুই ছেলে ইয়াবা পাচারকালে ইয়াবাসহ আটক হয়ে এখন জেল হাজতে। তারা হলেন একজন আবদুল মোমেন প্রকাশ বদাইয়্যা, আরেকজন আজিজুল হক প্রকাশ ভুট্টো। তারা দুইজনই ইয়াবাসহ ঢাকায় আটক হয়। মৌ হাসেমের দুই ছেলে ইয়াবাসহ আটক হলেও অপর আরো দুই ছেলেদে ও তার অন্যান্য সহযোগিদের দিয়ে ইয়াবা ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে বলে বিভিন্নসুত্রে জানা গেছে। এক ছেলে আবু হান্নান স্থানীয় পল্লী চিকিৎসা ও অপরজন কক্সবাজারের একটি  মুদির দোকানের সেলস্ ম্যানের আড়ালে তাদের এই ইয়াবা ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। তাদের মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন জায়গায় মাদক ইয়াবা চালান যাচ্ছে বলে সন্দেহ করছে সচেতন মহল।
দিকে এলাকার একটি মসজিদের ইমাম হওয়াতে এলাকার লোকজন তেমন কিছু বলছেনা। আর এই মৌলভী তকমা লাগিয়ে ইয়াবা ব্যবসা করছে বলে জানা যায় পুরো পরিবার। এরই মধ্যে ঢাকায় পাচারকালে পরিবারের দুই সদস্য ইয়াবাসহ আটক হয়েছে ভিন্ন ভিন্ন সময়ে।। তারা এখন জেলহাজতে আছে। পরিবারের প্রথমে একজন ইয়াবাসহ আটক হবার পরেও ইয়াবা কারবার বন্ধ করেনি মৌলভী হাসেম। আবারো ইয়াবার চালান নিয়ে পরিবারে আরেকজন আটক হয়। জানা গেছে রামু উপজেলার গর্জনিয়া ইউনিয়নের জুমছড়ির মৌলভী হাসেম এর ছেলে আজিজুল হক ভু্েট্টা (২৫)ও তার সহযোগী আলাউদ্দিন (৩৫) কে রাজধানীর হাতিরঝিল থানা এলাকা থেকে তিন হাজার পিস ইয়াবাসহ আটক করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের লালবাগ বিভাগ।
মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) এ কথা নিশ্চিত করেছেন ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের লালবাগ বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) মো. সাইফুর রহমান আজাদ ।
তিনি জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাতে হাতিরঝিল থানার পশ্চিম রামপুরা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।
তারা রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় মাদককারবারিদের কাছে ইয়াবা সরবরাহ করতেন বলেও মন্তব্য করেছেন সাইফুর রহমান আজাদ।
সরকার মাদককে জিরো টলারেন্স ঘোষনা করলেও তা তোয়াক্কা না করে গর্জনিয়ার জুমছড়ির মৌলভীর তকমা লাগিয়ে নিজের ছেলেদের দিয়ে মৌলভী হাসেম ইয়াবা ব্যবসা করাচ্ছে বলে জানা গেছে। মেঝ ছেলে আবু হান্নান পল্লী চিকিৎসা ও আরেক ছেলে কক্সবাজারের একটি মুদির দোকানের সেলস্ ম্যানের আড়ালে দেশের বিভিন্ন এলাকায় ইয়াবা পাচার করছে বলে এলাকাবাসীর ধারনা।
এদিকে একটি সুত্র জানিয়েছে মৌলভী হাসেম এর পুত্র আজিজুল হক ভুট্টো (২৫) ও তার পরিবার দীর্গদিন ধরে ইয়াবা ব্যবসার সাথে জড়িত । গত কয়েকমাস আগেও মৌলভী হাসেম এর আরেক ছেলে আবদুল মোমেন প্রকাশ বদাইয়্যা ইয়াবা বহন করে ঢাকায় পাচারকালে ইয়াবাসহ আটক হলেও তাদের এই ইয়াবা পাচার বন্ধ করেনি। তখন আবদুল মোমেন প্রকাশ বদাইয়্যা যে গাড়ি ব্যবহার করেছিল তা নাইক্ষ্যংছড়ির কফিল নামের একব্যক্তির গাড়ি বলে জানা যায়। তারা আটক হলেও আরো দুই ছেলে আবু হান্নানও আবুল মনসুর এই ব্যবসার হাল ধরে আছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন প্রতিবেশি জানান, তাদের তেমন জমিজমা নেই। কিন্তু চালচলনে মনে হয় অনেক টাকার মালিক। প্রত্যেক ভাই নিজেদের ব্যবহারের জন্য মটর সাইকেল নিয়েছে। মৌলভীর ছোট ছেলে আবুল মনসুর কক্সবাজারের একটি মুদির দোকানে সামান্য চাকরি করে অথচ সে ব্যবহার করে ২লক্ষ টাকা দামের মটর সাইকেল যা সত্যি এলাকাবাসিকে হকবাক করেছিল্। তবে তার দুই ছেলে ইয়াবা নিয়ে আটক হওয়ায় এলাকার মানুষ বুঝতে পেরেছে এই টাকার উৎস কোথায়।
এলাকাবাসী সুত্রে জানা গেছে এই মেীলভী হাসেম বিগত দিনে সাধারণ জীবনযাপন করলেও বর্তমানে তারা এলাকায় প্রভাব বিস্তার করার চেষ্টা চালাচ্ছে।। এমনও বলতে শুনেছে আগে টাকা ছিল না তাই তেমন কিছু বলতাম না,এখন টাকার কাছে সবকিছু হার মানে আমাদের টাকা আছে কাউকে পরোয়া করিনা।
এব্যাপারে জানতে রামু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল খায়ের টেলিফোনে জানান, সরকার মাদকের বিরোদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষনা করেছে।পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

 

 

 

 

 

Comments are closed.