চকরিয়ায় আকিত হোসেন সজীব প্রদত্ত বঙ্গবন্ধু অলিম্পিক ফুটবল টুর্ণামেন্টের ফাইনাল

এম.মনছুর আলম, চকরিয়া :

চকরিয়ায় মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে ও মাদকমুক্ত সমাজ বিনির্মাণ গড়ার প্রত্যয়ে তরুণ ছাত্র সমাজকে মাদকসহ নানা অপরাধ প্রবণতা থেকে দূরে সরিয়ে রাখতে আয়োজন করেছে বঙ্গবন্ধু অলিম্পিক ফুটবল টুর্ণামেন্ট। চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেধাবী ও পরিচ্ছন্ন ছাত্রনেতা আকিত হোসেন সজীব প্রদত্ত বঙ্গবন্ধু অলিম্পিক ফুটবল টুর্ণামেন্টের ফাইনাল খেলা অত্যান্ত ঝাঁকজমক পরিবেশের মধ্যেদিয়ে সম্পন্ন হয়েছে।

শুক্রবার (১১সেপ্টেম্বর) বিকালে চকরিয়া পৌরসভার সবুজবাগ আবাসিক এলাকার মাঠে অনুষ্ঠিত বঙ্গবন্ধু অলিম্পিক ফুটবল টূর্ণামেন্টের ফাইনাল খেলা সম্পন্ন হয়। টুর্ণামেন্ট খেলার প্রধান পৃষ্ঠপোষক উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আকিত হোসেন সজীবের সভাপতিত্বে ও ছাত্রনেতা জামশেদ উদ্দিন সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত ফাইনাল খেলায় প্রধান অতিথি ছিলেন, চকরিয়া পৌরসভা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক তরুণ সমাজ সেবক ও সাবেক ছাত্রনেতা আজিজুল ইসলাম সোহেল।
উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, চকরিয়া উপজেলা বিআরডিবি চেয়ারম্যান ও বিশিষ্ট ঠিকাদার আব্দুল হাকিম, চকরিয়া আবাসিক মহিলা কলেজের প্রভাষক মো.শওকত হোসেন, মাতামুহুরী কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক ফজলুল কাদের, জেলা ছাত্রলীগের প্রভাবশালী সদস্য ও চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাজিদ হোসেন সাকিব, বিশিষ্ঠ সমাজসেবক মোস্তাক আহমদ ও মো.আনছার প্রমুখ।
এছাড়াও বঙ্গবন্ধু অলিম্পিক ফুটবল টূর্ণামেন্টের ফাইনাল খেলায় উপস্থিত ছিলেন, চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা এহসান হাবিব, মোহাম্মদ সুজন, করিম উল্লাহ, আজমিহি তাজিদ, হাবিব উল্লাহ, ডুলাহাজারা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আনাস, কাকারা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত হোসেন, বরইতলী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল করিম, মাতামুহুরী ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি দিদার হোসাইন তাফহীম, ডুলাহাজারা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জিয়াবুল হাসান, আয়োজক কমিটির মোকাদ্দেস আলী, রিমন ,মোবারক ও রিপন।
উল্লেখ্য, ফাইনাল খেলায় দুই দলের মধ্যে মুখোমুখি হয়েছে ভেওলা স্পোর্টিংস ক্লাব ও চকরিয়া পৌরসভার ঘনশ্যাম বাজার পাড়া লাল দল। খেলায়
পৌরসভার ঘনশ্যাম বাজার পাড়া লাল দলকে হারিয়ে ভেওলা স্পোর্টিংস ক্লাব বিজয় লাভ করেন। পরে খেলা শেষে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ও অতিথিবৃন্দরা খেলায় বিজয়ী ও রানার্সআপ দলের খেলোয়াড়দের হাতে ট্রপি ও প্রাইজমানি পুরস্কার তুলে দেন। ফাইনাল খেলায় ম্যাচ রেফারি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন রবিউল হাসান।

বঙ্গবন্ধু অলিম্পিক ফুটবল টুর্ণামেন্টের আয়োজক ও খেলার প্রধান পৃষ্ঠপোষক উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আকিত হোসেন সজীব বলেন,
দেশের বর্তমান তরুণ প্রজন্মের ছাত্রসমাজকে মাদক ও অপরাধ প্রবণতার হাত থেকে রক্ষা করতে বঙ্গবন্ধু অলিম্পিক ফুটবল টুর্ণামেন্টের এই আয়োজন। নিয়মিত খেলাধুলা মাধ্যমে তরুণদের উৎসাহিত করে মাদকসহ অপরাধ থেকে দূরে সরিয়ে রাখতে মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে মাদকমুক্ত সমাজ বিনির্মাণ গড়ার প্রত্যয়ে ছাত্রলীগের পক্ষথেকে ভিন্ন আঙ্গিকে এ অলিম্পিক ফুটবল টুর্ণামেন্ট। দেশের প্রতিটি দুর্যোগময় মুহূর্তে ও প্রাণঘাতী করোনা সংক্রমণ প্রাদুর্ভাব পরিস্থিতিতে ছাত্রলীগ সবসময় ইতিবাচক মনোভাব নিয়ে মাঠে নিরলস ভাবে কাজ করেছে। আগামীতেও দেশের মানুষের কল্যাণে ও বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে আমরা ইতিবাচক কাজ করে যাবো এটাই হলো মুজিব শতবর্ষের অঙ্গীকার।

Comments are closed.