অমর একুশে বইমেলায় সাংবাদিক শুকলাল দাশ-এর কাব্যগ্রন্থ ‘মুজিব তুমি বজ্রকণ্ঠ অটল হিমালয়’

প্রেস বিজ্ঞপ্তি:

মুজিব বর্ষ উপলক্ষে অমর একুশে বইমেলা-২০২০’এ সাংবাদিক শিশুসাহিত্যিক শুকলাল দাশ-এর প্রকাশিত হয়েছে নতুন কিশোর কাব্যগ্রন্থ ‘মুজিব তুমি বজ্রকণ্ঠ অটল হিমালয়’। বইটির প্রচ্ছদ এঁকেছেন উত্তম সেন। বত্রিশ পৃষ্ঠার কালার বইটির মূল্য রাখা হয়েছে মাত্র দুইশ’ টাকা।

সোমবার ১০ ফেব্রæয়ারি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক আয়োজিত অমর একুশে বইমেলা-২০২০ এর উদ্বোধনী দিনে (এমএ আজিজ স্টেডিয়াম চত্বর) চন্দ্রবিন্দু প্রকাশন-এর ১২১ ও ১২২ নং স্টলে ও একই সাথে ঢাকা বাংলা একাডেমির বইমেলায় চন্দ্রবিন্দু প্রকাশনের ৬০৭ নং স্টলে পাওয়া যাবে।

এছাড়াও প্রকাশিত হচ্ছে লেখকের মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক কিশোর উপন্যাস ‘জন্ম আমার ধন্য হলো মাগো’। বইটি প্রকাশ করছে অক্ষরবৃত্ত প্রকাশনী। ঢাকা ও চট্টগ্রামের অমর একুশে বইমেলায় বইটি পাওয়া যাবে। মেলা থেকে আজই আপনার কপি সংগ্রহ করুন।

সাংবাদিক ও কবি শুকলাল দাশের কবিতায় ছন্দময়, নান্দনিকতা ইতোমধ্যে পাঠক মহলে ব্যাপক জনপ্রিয় ও প্রশংসিত হয়েছে। এর আগেও কবির উপন্যাস ও কাব্যগ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে। তাঁর রয়েছে একটি নিজস্ব রচনাশৈলী। শব্দের অভূতপূর্ব গাঁথুনির মাধ্যমে তিনি এক অনবদ্য কাব্যিক আবহ নির্মাণ করেন।

সাংবাদিকতার পেশাগত যাপিত জীবনের পাশাপাশি নিরন্তন লেখালেখি করে চলেছেন। শিশুসাহিত্যের নানা শাখায় রয়েছে তার অবাধ বিচরণ। গল্প কিশোর কবিতার অঙ্গনে তাঁর লেখালেখি সবার প্রশংসা অর্জন করেছে। বেরিয়েছে ইতিমধ্যে কিশোর কবিতা, কিশোর গল্পগ্রন্থ। শিশু সাহিত্যের পাশাপাশি লিখেছেন বড়দের জন্য ও লিখেছেন বড়দের কবিতা, পত্রোপন্যাস। বেরিয়েছে কাব্যগ্রন্থও। কিশোর সাহিত্য, বড়দের লেখালেখি নিয়ে তার এ পর্যন্ত বেরিয়েছে নয়টি গ্রন্থ।

শিশু-কিশোর সংগঠক হিসেবে তাঁর যথেষ্ট পরিচিতি রয়েছে। শিশু মানস গঠনমূলক সংগঠন শিশুদের পাঠশালার পরিচালকের দায়িত্ব পালন করেছেন ২০০১ সাল থেকে। শিশুসাহিত্যিকদের দীর্ঘদিন ধরে লেখালেখির মূল্যায়নের প্রদান করে আসছেন ”শিশুদের পাঠশালা” শিশুসাহিত্যিক লেখক সম্মাননা।

শুকলাল দাশের জন্ম চট্টগ্রামের আনোয়ারার শিলালিয়া গ্রামে। বাবা রঞ্জিত দাশ, মা শচী প্রভা দাশ। স্ত্রী বিদিতা চৌধুরী রুশী, কন্যা উদিতি দাশ মুমু। দৈনিক আজাদীর সিনিয়র রিপোর্টার শুকলাল দাশ ২০১৭ থেকে ১৮ সাল পর্যন্ত চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন।

Comments are closed.