পেকুয়ায় সেই‘আলিম্যা’ডাকাতের বাড়ি থেকে অস্ত্র উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার, পেকুয়ায় সেই আরমান প্রকাশ আলিম্যা ডাকাতের বাড়ি থেকে একটি দেশীয় তৈরি লম্বা বন্ধুক ও ২রাউন্ড তাজা কার্তুজ উদ্ধার করে পুলিশ। গত রবিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে পেকুয়া থানা পুলিশ উপজেলার রাজাখালী ইউনিয়নের বদিউদ্দিন পাড়া এলাকা থেকে এসব উদ্ধার করেছে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ গত শনিবার সকাল ১০টার দিকে আরমান প্রকাশ আলিম্যা ডাকাতকে চকরিয়া কোর্ট বিল্ডিং এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে। এ সময় তার স্বীকারোক্তিতে পুলিশ রাতে তার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে একটি লম্বা বন্ধুক ও ২রাউন্ড তাজা কার্তুজ উদ্ধার করে। এ ব্যাপারে পেকুয়া থানার এসআই সরোজ রতন আচার্য্য বাদি হয়ে অস্ত্র আইনে গতকাল সোমবার একটি মামলা দায়ের করেন। যার নং-০৩/১৭। পেকুয়া থানার অফিসার ইনর্চাজ জিয়া মো.মোন্তাফিজ ভুঁইয়া অস্ত্র ও গুলাবারুদ উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। ওসি জানায় গ্রেফতারকৃত আরমান (২৪) প্রকাশ আলিম্যা ডাকাত একজন দুর্ধর্ষ ও ভয়ংকর ডাকাত। তার বিরুদ্ধে পেকুয়া থানায় জি.আর-১৩/১২, ২০/১৪, ৩/১৬,১৩/১৫ ও সি.আর মামলা নং-৫৯৬/১৫ রয়েছে। এসব মামলায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারী ফরোয়ানা আছে। এদিকে গ্রেফতারকৃত আলিম্যা ডাকাত উপকুলের দুর্ধর্ষ ত্রাস। তার গ্রেফতার ও উদ্ধারের খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে রাজাখালীসহ পাশ্ববর্তী মগনামা, বারবাকিয়া ইউনিয়ন ও চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলায় স্থানীয়দের মাঝে স্বস্তিভাব ফিরে এসেছে। লবন চাষিরা তার কাছে জিম্মি ছিল। গত কয়েক বছর ধরে আলিম্যার নেতৃত্বে বদিউদ্দিন পাড়ার কিছু স্বসস্ত্র ডাকাত প্রকৃতির লোক লবন চাষিদের কাছ থেকে টোকেন দিয়ে চাঁদা আদায় করছিল। এনিয়ে গত দু’বছর আগে মগনামায় একজন খুন হয়েছিল। নিজেকে তোফান পরিচয় দিয়ে স্থানীয়দের ভীতি ছড়িয়ে আলিম্যা ডাকাত চাঁদাবাজি, ছিনতাই, ডাকাতি ও মহিলাদের সম্ভ্রমহানিতে লিপ্ত হন। তার কাছে শত শত মহিলা ইজ্জত লুন্ঠিত হয়েছে। রাতে যেসব বাড়িতে তার নেতৃত্বে ডাকাত দল হানা দিয়েছে ডাকাতির পাশা পাশি মহিলারা হয়েছে ধর্ষিত। কেউ মুখ খোলার সাহস করেনি ওই ভয়ংকর সন্ত্রাসীর ভয়ে। পুলিশ সুত্রে জানায় ওইদিন অস্ত্র উদ্ধারে নেতৃত্ব দিয়েছেন পেকুয়া থানার ওসি মোস্তাফিজ ভুঁইয়া।

Comments are closed.