প্রশ্ন ফাঁস হলেই আবার পরীক্ষা: শিক্ষামন্ত্রী

ওয়ান নিউজঃ চলতি এসএসসি পরীক্ষার গণিতের (আবশ্যিক) প্রশ্নপত্র ফাঁসের যে অভিযোগ উঠেছে তদন্তে যদি সত্যি সত্যি দেখা যায় যে ফাঁসের প্রমাণ মিলেছে, তাহলে ওই পরীক্ষা বাতিল করে পুনরায় পরীক্ষা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

সোমবার সচিবালয়ে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এ বিষয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন পাওয়ার পর সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। প্রশ্ন ফাঁসের সম্ভাব্য বিভিন্ন উৎস আমরা বন্ধ করেছি। এর সফলতাও পেয়েছিলাম। গত দু-তিন বছর ধরে কোনো প্রশ্ন ফাঁস হয়নি। প্রশ্ন ফাঁস আমরা বরদাস্ত করবো না। দোষীদের ধরবোই। পুলিশ ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী এ নিয়ে কাজ করছে। ইতোমধ্যে বেশ কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

নাহিদ আরো বলেন, শিক্ষকদের মধ্যে এ রকম অসৎ ব্যক্তির সংখ্যা সীমিত। অসৎ শিক্ষকদের ধরিয়ে দিতে সব শিক্ষকের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। অসৎ শিক্ষকদের কাছ থেকে অভিভাবকদের সতর্ক থাকতে হবে।

এ বিষয়ে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক তপন কুমার সরকার বলেন, ফেসবুকে যে প্রশ্ন দেওয়া হয়েছিল, তা তারাও পেয়েছিলেন। কিন্তু মিলিয়ে দেখেছেন তা মেলেনি। তবে গতকাল সকাল সাড়ে নয়টার দিকে একটি পত্রিকার একজন সাংবাদিক যে প্রশ্নপত্র তাঁর কাছে দিয়েছিলেন, তার সঙ্গে মূল প্রশ্নপত্র মিলেছে।

http://www.amritabazar.com/media/PhotoGallery/2016July/qst_L20170213073910.jpg

তিনি দাবি করেন, এটা পরীক্ষার আগে আগে কেন্দ্র থেকে (ফাঁস) হয়ে থাকতে পারে। আগেও এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে এবং ধরাও হয়েছে। এবারও এ ধরনের শিক্ষকদের ধরার চেষ্টা চলছে।

উল্লেখ্য, ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের অধীন রোববার অনুষ্ঠিত গণিত (আবশ্যিক) পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। পরীক্ষার আগে যেসব প্রশ্ন বিভিন্ন মাধ্যমে পাওয়া গেছে, সেগুলো পরীক্ষার মূল প্রশ্নপত্রের সঙ্গে মিলে গেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

Comments are closed.