দু’পররাষ্ট্রমন্ত্রী উখিয়ার কুতুপালং শরণার্থী শিবির পরিদর্শন

ওয়ান নিউজঃ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্টমন্ত্রী রেতনো মারসুদিকে সাথে নিয়ে উখিয়ার রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্প পরিদর্শন করেছেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী। মঙ্গলবার সকাল ১১টা থেকে ১২ পর্যন্ত সময়ে এই দু’পররাষ্ট্রমন্ত্রী উখিয়ার কুতুপালং শরণার্থী শিবিরের বিভিন্ন ব্লক পরিদর্শন করেন। এ সময় তাঁরা রোহিঙ্গাদের সঙ্গে কথা বলেন তারা।
এর আগে বেলা ১১টার দিকে বাংলাদেশ সফররত ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেতনো মারসুদি ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলীর হেলিকপ্টার যোগে উখিয়া পৌঁছায়। পরে সেখান থেকে কুতুপালং শরণার্থী শিবিরে যান দু’মন্ত্রী। তাদের সাথে ছিলেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম ও পররাষ্ট্র সচিব শহিদুল হক। এছাড়া কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. আলী হোসেন, পুলিশ সুপার শ্যামল কুমার নাথ, কক্সবাজার-৪ আসনের এমপি আব্দুর রহমান বদিসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থার প্রতিনিধিরাও উপস্থিত ছিলেন।
পরিদর্শনকালে দুই মন্ত্রী রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরের বিভিন্ন ব্লকের রোহিঙ্গাদের সাথে কথা বলেন এবং তারে ওপর নির্যাতনের কথা শোনেন। এসময় দু’মন্ত্রীকে পেয়ে মায়ানমার থেকে পালিয়ে আসার রোহিঙ্গা মন্ত্রীদের সামনে ভিড় জমাতে চেষ্টা করেন। অনেকে কান্নায় ভেঙে পড়েন।
প্রসঙ্গত, রোহিঙ্গাদের ওপর মিয়ানমারের সশস্ত্র বাহিনীর নির্যাতন ইস্যুতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী ও ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেতনো মারসুদি বৈঠক করবেন। রোহিঙ্গাদের অবস্থা সরেজমিনে পরিদর্শনের পর তাদের এই বৈঠক হবে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গেও ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বৈঠক করার কথা রয়েছে । রাতেই তিনি দেশে ফিরে যাবেন।

উল্লেখ্য, গত অক্টোবরে মিয়ানমার সীমান্ত চৌকিতে আক্রমণে কয়েকজন পুলিশ নিহত হন। এরপর মিয়ানমারের সশস্ত্র বাহিনী নিরীহ রোহিঙ্গাদের ওপর আক্রমণ চালায়। এখন পর্যন্ত শতাধিক রোহিঙ্গা নিহত হয়েছেন এবং ৩০ হাজারের বেশি গৃহহারা হয়েছেন। এছাড়া নিজেদের জীবন বাঁচাতে ৩০ হাজারের মতো রোহিঙ্গা বাংলাদেশের সীমান্তে ঢুকে পড়েছেন বলে দাবি করেছে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংগঠন।

Comments are closed.