জনগণের মন জয় করেই ভোটে জিততে হবেঃ শেখ আফিল উদ্দিন এমপি

ইয়ানূর রহমান / শেখ কাজিম উদ্দিন : জনগণের মন জয় করেই আগামী ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে জয়লাভের প্রস্তুতি নেওয়ার জন্য দলীয় নেতাকর্মীদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন সংসদ সদস্য আলহাজ শেখ আফিল উদ্দিন। আমাদেরকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। ঘরে ঘরে নৌকার পক্ষে ভোট চাইতে হবে। জনগণের কাছে সরকারের উন্নয়নকাজ তুলে ধরতে হবে। শনিবার দিনভর শার্শার বেনাপোলে পৌর এলাকায় নির্বাচনী গনসংযোগকালে পথসভায় আওয়ামীলীগের নেতাকর্মী সমর্থকদের উদ্দেশ্যে তিনি এসব কথা বলেন।

দুর্নীতি মামলার রায়ে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জেলে যাওয়ার পর তার ছেলে তারেক রহমানকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন করার কঠোর সমালোচনা করে এমপি আলহাজ শেখ আফিল উদ্দিন বলেন, অবৈধ ক্ষমতা দখল করে গঠিত দল বিএনপি জনগণকে কী দিতে পারে? তারা কেবল চুরি করতে পারে। তাদের নেত্রী এখন এতিমের টাকা চুরির অপরাধে জেলে। তার অবর্তমানে দলটির চেয়ারপারসন করা হয়েছে এমন একজনকে- যিনি কিনা দুর্নীতির মামলায় সাজাপ্রাপ্ত, পলাতক।

তিনি বলেন, তাদের (বিএনপি) গঠনতন্ত্রে ছিল কেউ দুর্নীতির দায়ে সাজা পেলে দলের নেতা হতে পারবেন না। দলের গঠনতন্ত্রে পরিবর্তন এনে দুর্নীতিবাজদের দলীয় প্রধান করার সুযোগ তৈরি করে তারা প্রমাণ করেছে – বিএনপি দুর্নীতিবাজদের দল।

দলের মধ্যে বিএনপি-জামায়াতসহ ভিন্ন আদর্শের ব্যক্তিদের অনুপ্রবেশ ঘটানোর বিরুদ্ধে নেতাদের সতর্ক করে দিয়ে তিনি বলেন, দল যেহেতু ক্ষমতায় এবং আগামীতেও ক্ষমতায় যাবে তাই অনেকেই দলে ভিড়তে চায়। মনে রাখবেন, এরা মধু খেতে আসে, কাজ করতে আসে না। এরা কখনো আপন হবে না। নিজের লোককে আপন না করে, এদের কাছে টানবেন না। এরা দলে এসে খুন খারাবি করে বলবে- দলের লোক খুন করেছে। কাজেই কেউ যদি এদের প্রশ্রয় দিয়ে থাকেন, এখনো সময় আছে বিদায় করুন।

সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ ও মাদকের বিরুদ্ধে আওয়ামীলীগ সরকারের দৃঢ় অবস্থান পুনর্ব্যক্ত করে তিনি বলেন, এদেশে জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস ও মাদকের স্থান হবে না। জনগণের ভাগ্য নিয়ে আর কাউকে ছিনিমিনি খেলতে দেওয়া হবে না বলেও হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন এমপি শেখ আফিল উদ্দিন।

বক্তব্যের শুরুতে আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠার ইতিহাস এবং ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে মুক্তিযুদ্ধ ও দেশের স্বাধীনতা অর্জন, গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা এবং জনগণের ভোট ও ভাতের অধিকার আদায়ে দেশের সর্ববৃহৎ ও প্রাচীনতম এই দলটির গৌরবজ্জ্বল ভূমিকার কথা তুলে ধরেন তিনি।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের ইতিহাস লিখতে গেলে আওয়ামী লীগের ইতিহাস এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জীবনীই লিখতে হয়। একটি সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য নিয়েই জাতির পিতা এই দল সৃষ্টি করেছেন। আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাই হয়েছে বাঙালি জাতির মুক্তির জন্য। এদেশের মানুষের প্রতিটি অর্জনের সঙ্গেই এই দলটি ওতপ্রোতোভাবে জড়িত। বাঙালির যা কিছু অর্জন, তা আওয়ামী লীগের হাত ধরেই, আওয়ামী লীগের সময়েই।

বেনাপোল পৌরসভা এলাকায় পথসভা ও গনসংযোগকালে আরো উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক মঞ্জু, জেলা আওয়ামীলীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আসিফ-উদ-দৌলা অলোক, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আলহাজ নুরুজ্জামান, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক সালেহ আহমেদ মিন্টু, অধ্যক্ষ ইব্রাহিম খলিল, কোষাধক্ষ আলহাজ ওয়াহিদুজ্জামান ওহিদ, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মেহেদি হাসান, চেয়ারম্যান আলহাজ বজলুর রহমান, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের সদস্য অহিদুজ্জামান অহিদ, সাধারন সম্পাদক চেয়ারম্যান সোহারাব হোসেন, ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুর রহিম সরদার, সাধারন সম্পাদক ইকবাল হোসেন রাসেল, বাস্তহারালীগের সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ আলী, পৌর কাউন্সিলর বকুল, যুবলীগ নেতা সাংবাদিক ফেরদৌস চৌধুরী রাজু, সাংবাদিক আবুল হেসেন, সাশেদুর রহমান রাশু প্রমুখ।

Comments are closed.