উন্নয়ন ও অগ্রগতির ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে নৌকায় ভোট দেনঃ জাফর

প্রেস বিজ্ঞপ্তি :

কক্সবাজার-১ (চকরিয়া-পেকুয়া) আসনে আওয়ামীলীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোটের সংসদ সদস্য প্রার্থী চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সদ্য সাবেক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ জাফর আলম বলেছেন, ‘নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত করতে হলে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। গত ১০ বছর চকরিয়া-পেকুয়ায় শিক্ষা, চিকিৎসা, মসজিদ-মাদরাসা, রাস্তা-ঘাট, স্কুল-কলেজ, মন্দির, উপসনালয় সহ সর্ব ক্ষেত্রে ব্যাপক উন্নয়ন সাধন করেছে। বাংলাদেশে উন্নয়নে এগিয়ে যাচ্ছে, সেই উন্নয়নের গতিটা যেন অব্যাহত থাকে। এটাই মানুষকে বোঝাতে হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘সাধারণ মানুষের কাছে বর্তমান সরকারের ১০ বছরের উন্নয়ন কর্মকান্ডের খবর পৌঁছে দিতে হবে। নির্বাচনের আর মোটে ৯দিন বাকি রয়েছে। চকরিয়া-পেকুয়া সকলেই নৌকার বিজয়ের জন্য কোমর বেঁধে কাজ করতে হবে। আমাদের প্রার্থীকে জিতিয়ে আনতে সামনের এই কয়টা দিন সকলকে নিরলসভাবে কাজ করতে হবে।’

আগামী নির্বাচনে মানুষের ঘরে ঘরে গিয়ে ভোট চাওয়ার জন্য নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে জাফর আলম আরো বলেন, ‘নৌকা ভাষার অধিকার ও স্বাধীনতা দিয়েছে। নৌকা দারিদ্র্য থেকে মুক্তি এনে দিচ্ছে। নুহ নবীর নৌকা মানুষকে প্লাবনের হাত থেকে রক্ষা করেছে। তেমনি আগামী দিনে এই নৌকাই মানুষের মুক্তি এনে দেবে। তাই নেতাকর্মীদের নৌকা প্রতীকে ভোট দেওয়ার জন্য মানুষের ঘরে ঘরে গিয়ে উন্নয়নের কথা বলতে হবে। মানুষের কাছে জানান দিতে হবে, উন্নয়ন ও অগ্রগতির ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে তারা যেন নৌকা মার্কায় ভোট দেন।’

গতকাল বৃহস্পতিবার ২০ডিসেম্বর বিকাল ও সন্ধ্যায় মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলার সাহারবিল, কোনাখালীতে অনুষ্ঠিত পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ হোছাইন, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ফাসিয়াখালী ইউপি চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য আমিনুর রশিদ দুলাল, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য এস এম গিয়াস উদ্দিন, জিএম আবুল কাসেম, চকরিয়া পৌরসভার মেয়র আলমগীর চৌধুরী, মাতামুহুরী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পশ্চিম বড় ভেওলা ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম বাবলা, সাধারণ সম্পাদক ও সাহারবিল ইউপি চেয়ারম্যান মহসিন বাবুল, সিনিয়র সহ-সভাপতি এসএম জাহাংগীর আলম বুলবুল, সহ-সভাপতি মকছুদুল হক ছুট্টু, চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান জাহেদুল ইসলাম লিটু, সাধারণ সম্পাদক আতিক উদ্দিন চৌধুরী, কক্সবাজার জেলা পরিষদের সদস্য ও পেকুয়া উপজেলা যুবলীগের সভাপতি জাহাংগীর আলম, চিরিঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ জসীম উদ্দিন, পেকুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম, সহ-সভাপতি সাংবাদিক জহিরুল ইসলাম, উজানটিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এটিএম শহিদুল ইসলাম, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মোক্তার আহমদ চৌধুরী, এমআর চৌধুরী, সহসভাপতি ফজলুল করিম সাঈদী, ছৈয়দ আলম কমিশনার, যুগ্ম সম্পাদক জামাল উদ্দিন জয়নাল, যুগ্ম সম্পাদক চেয়ারম্যান আজিমুল হক আজিম, শাহনেওয়াজ তালুকদার, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম, শওকত ওসমান চেয়ারম্যান, সাংবাদিক মিজবাউল হক, আওয়ামীলীগ নেতা আমিনুল করিম, চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি তপন কান্তি দাশ, সহ-সভাপতি অধ্যাপক মোসলেহ উদ্দিন মানিক, চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক রতন কুমার সুশীল, ফেরদৌস ওয়াহিদ, সেলিম উদ্দিন লিটন, কাউন্সিলর রেজাউল করিম, সাংগঠনিক সম্পাদক মুজিবুর রহমান লিটন, নজরুল ইসলাম লিটন, ফরিদুল ইসলাম, আওয়ামীলীগ নেতা মিফতাব উদ্দিন চৌধুরী, পুর্ববড় ভেওলা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফ হোসেন মেম্বার, পশ্চিম বড়ভেওলা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম খলিল, চকরিয়া পৌরসভা কুষকলীগের সভাপতি সুলাল কান্তি সুশীল, আলহাজ নজরুল ইসলাম, আমির হোসেন আমু, চকরিয়া উপজেলা যুবলীগের সভাপতি শহীদুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক কাউছার উদ্দিন কছির, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি শওকত হোসেন, সাধারণ সম্পাদক বাবলা দেবনাথ, উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি জামাল উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক সাইফ উদ্দিন মামুন, চকরিয়া পৌরসভা যুবলীগের সভাপতি হাসানগীর হোছাইন, সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইসলাম সোহেল, সাবেক ছাত্রনেতা রনী চৌধুরী, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আলহাজ হায়দার আলী, সাবেক সভাপতি শেফায়েতুল কবির চৌধুরী বাপ্পী, সাবেক সম্পাদক সাজিদ হোসেন শাকিব, সাদ্দাম হোসেন মিঠু, চকরিয়া পৌরসভা শ্রমিকলীগের সভাপতি জহিরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন ধুলু, চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোহাম্মদ মারুফ, সাধারণ সম্পাদক রুবেল মাহমুদ, চকরিয়া পৌরসভা ছাত্রলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানা পারভেজ ও ছাত্রনেতা আবদুল বারেক টিপু প্রমুখ।

Comments are closed.