ফরিদপুরের জেলা প্রশাসককে প্রাণনাশের হুমকি

ওয়ান নিউজ ডেক্স: আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক উম্মে সালমা তানজিয়াকে উড়ো চিঠির মাধ্যমে প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হয়েছে।

ডাকযোগে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির লেখা ওই চিঠিতে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিরপেক্ষভাবে কাজ না করলে জেলা প্রশাসক ও তার পরিবারের সদস্যদের জানমালের ক্ষতি করার হুমকি দেওয়া হয়।

জেলা প্রশাসক উম্মে সালমা তানজিয়া জানান, খামের ওপর গোপনীয় লেখা চিঠিটি অফিসের সিএ’র মাধ্যমে তার হাতে পৌঁছায়। লাল ও সবুজ কালি দিয়ে লেখা চিঠিটি পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য গোয়েন্দা সংস্থার কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, একই ধরনের চিঠি মাদারীপুর ও নোয়াখালীর জেলা প্রশাসককেও দেওয়া হয়েছে বলে তিনি শুনেছেন। তবে এই চিঠি পেয়ে নির্বাচনে জেলা রিটার্নিং অফিসার হিসেবে তিনি মোটেও বিচলিত নন বলে জানান।

উল্লেখ্য, ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক উম্মে সালমা তানজিয়া দেশ সেরা জেলা প্রশাসক নির্বাচিত হয়েছেন। গত বছরের ১৫ সেপ্টেম্বর উম্মে সালমা তানজিয়া ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক হিসাবে যোগদান করেন।

যোগদানের পর থেকেই প্রশাসনকে জনবান্ধব করার লক্ষ্যে নানামুখী কর্মসূচি গ্রহণ করেন তিনি। জেলা ই-সেবা কেন্দ্র, ইউডিসি, হেল্প ডেস্ক, জয়িতা অঙ্গন, ডিজিটাল হাজিরাসহ নানা কর্মসূচি চালু ও সেবার মান উন্নয়নসহ সব ক্ষেত্রে কাজের গতি সঞ্চার করেন। ছাত্র-ছাত্রীদের আধুনিক ও নৈতিক শিক্ষায় সুশিক্ষিত করে গড়ে তোলার জন্য ছাত্র-শিক্ষক-অভিভাবকদের সমন্বয়ে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেন। ২৫০টির অধিক স্কুল ও কলেজে মাল্টিমিডিয়া ক্লাস রুম প্রতিষ্ঠা করেন তিনি।

রাজবাড়ীর পাংশার মেয়ে উম্মে সালমা তানজিয়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রাণিবিজ্ঞান বিভাগে স্নাতক ও স্নাতকতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি ১৯৯৮ সালে বিসিএস (প্রশাসন) ক্যাডারে সহকারী কমিশনার হিসেবে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় যোগদান করেন। এরপর বিভিন্ন জেলায় সহকারী কমিশনার, সহকারী কমিশনার (ভূমি), জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব, উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

সিরাজগঞ্জ জেলায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৩ সালের মার্চে উপসচিব হিসেবে পদোন্নতি পান। পরবর্তীতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একসেস টু ইনফরমেশনে (এ টু আই) কর্মরত ছিলেন। সর্বশেষ তিনি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উপসচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

Comments are closed.