৩০ ডিসেম্বর আপেল মার্কায় ভোট দিয়ে আওয়ামী দুঃশাসনের জবাব দেবে মহেশখালী-কুতুবদিয়াবাসী

ওয়ান নিউজঃ আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কক্সবাজার-০২ (মহেশখালী-কুতুবদিয়া) আসনে ২০ দলীয় জোট সমর্থিত প্রার্থী কারাবন্দি মজলুম জননেতা ও সাবেক এমপি এএইচএম হামিদুর রহমান আযাদের আপেল মার্কার সমর্থনে এক নির্বাচনী দায়িত্বশীল সমাবেশ নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব আবুহেনা মোস্তফা কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার জেলা জামায়াতের আমীর ও কেন্দ্রীয় মজলিশে শুরা সদস্য মাওলানা মোস্তাফিজুর রহমান।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেছেন, সততা, যোগ্যতা ও আল্লাহভীরুতার দিক দিয়ে অন্য সকল প্রার্থীর চেয়ে হামিদ আযাদ এগিয়ে। হামিদ আযাদ স্থানীয় পর্যায়ে নেতৃত্ব দিয়ে বর্তমানে জাতীয় পর্যায়ে যোগ্যতার সহিত নেতৃত্ব দেয়ার মাধ্যমে মহেশখালী-কুতুবদিয়াবাসীর মুখ উজ্জ্বল করছেন। অতীতে সংসদ সদস্য থাকাকালে তিনি কৃষক-শ্রমিক, চাষী-মজুরসহ সকলস্তরের মানুষের জীবনমান উন্নয়নে আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়েছিলেন যার কারণে মহেশখালী-কুতুবদিয়াবাসীর নিকট হামিদ আযাদ এক জনপ্রিয় নাম।

তার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে আওয়ামী ষড়যন্ত্রে তাকে কারাগারে বন্দি করে রাখা হয়েছে। আমি আগামী ৩০ ডিসেম্বর আপেল মার্কায় ভোট প্রদান করে আওয়ামী দুঃশাসন ও দুর্নীতি এবং অন্যায়-অত্যাচারের জবাব দেয়ার জন্য মহেশখালী-কুতুবদিয়াবাসীর প্রতি আহবান জানাচ্ছি। প্রত্যেক নেতাকর্মীকে জনগণকে সাথে নিয়ে একেকজন হামিদুর রহমান আযাদের ভূমিকায় অবর্তীণ হয়ে আপেল মার্কার বিজয়ের লক্ষে ঝাঁপিয়ে পড়ার অনুরোধ করছি।

তিনি আরো বলেন, মহেশখালী-কুতুবদিয়ার বিভিন্নস্থানে নৌকার সমর্থকরা আপেল মার্কার কর্মীদেরকে মারধর করছে। হুমকি-ধমকি দিয়ে প্রচারকাজে বাধা সৃষ্টি করছে এবং আপেল মার্কার পোস্টার ছিড়ে ফেলে দিচ্ছে। পুলিশ মহেশখালী থেকে আপেল মার্কার সমর্থককে ধাওয়া দিয়ে গ্রেফতার করে নিয়ে গেছে এবং আমাদের নিরপরাধ নেতাকর্মীদের বাসাবাড়িতে অভিযান চালিয়ে নিত্যব্যবহার্য জিনিস ও আসবাবপত্র ভাংচুর করে হুমকি দিচ্ছে।

আমরা পুলিশ প্রশাসনের এহেন উসকানিমূলক কর্মকান্ড বন্ধ করার অনুরোধ করছি। অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন সম্পন্ন করতে আমরা সকল মহলের নিকট যে কোন ধরনের হঠকারিমূলক কর্মকা- থেকে বিরত থাকার আহবান জানাচ্ছি। জনগণের নিরাপত্তা ও শান্তি-শৃংখলাকে প্রধান্য দিয়ে আমরা আমাদের নির্বাচনী কাজ চালিয়ে যাচ্ছি এবং যাব। আমি নির্বাচন কমিশন ও পুলিশ প্রশাসনের নিকট সকলের জন্য সমান সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করার আহবান জানাচ্ছি। অবিলম্বে ২০ দলীয় জোট সমর্থিত কক্সবাজার-০২ আসনের প্রার্থী হামিদুর রহমান আযাদসহ আটককৃত সকল নেতাকর্মীদের মুক্তি দেয়ার জন্য সরকারের জোর দাবি জানাচ্ছি।

বিভিন্নস্থানে হামিদ আযাদ সহধর্মিনীর গণসংযোগ:

প্রত্যেহদিনের মতো ১৯ ডিসেম্বর ভোর থেকেই হামিদ আযাদ পত্নী জেবুন্নেছা চৌধুরী কুতুবদিয়ার বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করেন। গণসংযোগকালে তিনি বলেন, আমার স্বামী রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে কারাগারে বন্দি জীবন-যাপন করছেন। জনগণ থেকে দূরে রাখার জন্য সরকার একের পর এক হয়রানিমূলক মিথ্যা দিয়ে জেলমুক্তিতে বাধার সৃষ্টি করেছে। আমার স্বামীর গণতান্ত্রিক ও সাংবিধানিক অধিকার নিশ্চিত করার জন্য অবিলম্বে তাকে মুক্তি দিয়ে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশগ্রহণ করার সুযোগ দানের জোর দাবি জানাচ্ছি পাশাপাশি ৩০ ডিসেম্বর আপেল মার্কায় ভোট দিয়ে সকল প্রকার জুলুম-নির্যাতনের জবাব দেয়ার জন্য মহেশখালী-কুতুবদিয়াবাসীর নিকট আহবান জানাচ্ছি। ১৯ ডিসেম্বর বড় মহেশখালীর শুকরিয়াপাড়া বাজারসহ উপজেলার বিভিন্নস্থানে আপেল মার্কার সমর্থনে গণসংযোগ করেন স্থানীয় নেতাকর্মীরা।

এতে জেলা ছাত্রশিবির সভাপতি রবিউল আলম, জিসান মাহমুদ, মুহাম্মদ আলমগীরসহ জোটের নেতাকর্মীরা অংশগ্রহণ করেন।

Comments are closed.