সব পক্ষের অংশগ্রহণ ছাড়া নির্বাচন কার্যকর হবে না

ওয়ান নিউজ ডেক্স: যুক্তরাষ্ট্র মনে করে নির্বাচনের পদ্ধতি কার্যকর হবে না, যদি না সবাই নির্বাচনী প্রক্রিয়া সমানভাবে অংশগ্রহণ করতে না পারে। বলেছেন ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত রবার্ট আর্ল মিলার।

মঙ্গলবার (১৮ ডিসেম্বর) গুলশানে বিএনপি চেয়ারপার্সন রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলটির মহাসচিবের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এই এ কথা জানান তিনি।

এসময় তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র চায় বাংলাদেশে একটি অবাধ, সুষ্ঠু, গ্রহণযোগ্য, অংশগ্রহণমূলক ও শান্তিপূর্ণ জাতীয় নির্বাচন হোক। একাদশ জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে সব পক্ষকে সহিংসতা পরিহার করার আহ্বান জানান রবার্ট আর্ল মিলার।

মিলার বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য সব পক্ষকে সহিংসতা পরিহার করতে হবে এবং সহিংসতাকে নিন্দা জানাতে হবে।

মার্কিন রাষ্ট্রদূত বলেন, আমি সবাইকে উদ্বুদ্ধ করব গণতান্ত্রিক উপায়ে নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করার জন্য। আমরা আহ্বান জানাই সবাইকে মুক্তভাবে পুরোদমে নির্বাচনী প্রচারে নেমে যাওয়ার জন্য। ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার জন্য।

বিএনপির সঙ্গে বৈঠকে কি আলোচনা হয়েছে জানতে চাইলে বিএনপির এক নেতা জানান, কারাবন্দী দলীয় চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা ও নির্বাচনে অংশ নেওয়া ধানের শীষের প্রার্থীসহ বিরোধী দলের নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তারের বিষয়টি তুলে ধরা হয়।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সঙ্গে বৈঠকের পর দূতাবাসের ফেসবুক পেজে এক পোস্টে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মিলার বলেন, যুক্তরাষ্ট্র চায়, বাংলাদেশে অবাধ, সুষ্ঠু, গ্রহণযোগ্য, অংশগ্রহণমূলক এবং শান্তিপূর্ণ নির্বাচন হোক।

বৈঠক শেষে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাংবাদিকদের বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বর্তমান নির্বাচনের পরিস্থিতি নিয়ে আমাদের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। তারা এখানে ভয়ভীতি ও ত্রাসমুক্ত নির্বাচন দেখতে চান, সকলের কাছে গ্রহণযোগ্য, সকলের অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে একটা সুষ্ঠু, অবাধ, নিরপেক্ষ নির্বাচন দেখতে চান। এটাই হচ্ছে তাদের সবচেয়ে বেশি প্রত্যাশা।

বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য আব্দুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল আউয়াল মিন্টু, চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য সাবিহ উদ্দিন আহমেদ ও নির্বাহী কমিটির সদস্য তাবিথ আউয়াল।

Comments are closed.