শেখ হাসিনার সরকারই ক্ষমতায় আসবে ইনশাআল্লাহঃ মেয়র ফিরহাদ হাকিম

ওয়ান নিউজ ডেক্স:  শেখ হাসিনার নেতৃত্বে যে সরকার বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে গেছে, ইনশাআল্লাহ সেই সরকারই আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ক্ষমতায় আসবে বলে মন্তব্য করেছেন পশ্চিমবঙ্গের পৌর ও নগরোন্নয়ন, ফায়ার সার্ভিস মন্ত্রী এবং কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম।

রবিবার সন্ধ্যায় কলকাতায় বাংলাদেশ ডেপুটি হাইকমিশন প্রাঙ্গণে মহান বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ফিরহাদ হাকিম বলেন “ধর্মের উপর ভিত্তি করে দেশ গঠন করে যে বেশি দিন টিকিয়ে রাখা যায় না বাংলাদেশের স্বাধীনতাই তার প্রমাণ। পাক-হানাদার বাহিনীর নির্মম অত্যাচার সত্ত্বেও শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃতে বাংলাশের জনগণ রক্তক্ষয়ী সংগ্রাম চালিয়ে গিয়েছিল। জন্ম নিয়েছিল একটা স্বাধীন রাষ্ট্র। তাদের ওই লড়াই প্রমাণ করে কোনো পরিস্থিতিতেই একমাত্র আল্লাহ ছাড়া কোনো চাপের কাছে বাংলাদেশিরা মাতা নত করে না। তাদের এই সাহস ও লড়াই থেকে আমাদেরও অনেক কিছু শেখার আছে।”

তিনি আরও বলেন, “একটা কথা মনে রাখতে হবে যে সাম্প্রদায়িকতা কখনও ফল দেয় না। এটা সাময়িক। বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িক শক্তি ক্ষমতায় আসতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। কিন্তু মনে রাখতে হবে কলকাতার মতো বাংলাদেশের সংস্কৃতিও অসাম্প্রদায়িক। কিছু মানুষ এটাকে সরিয়ে মৌলবাদকে চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে। তবে নিশ্চিত থাকবেন যাদের আদর্শ রবীন্দ্রনাথ বা নজরুল ইসলাম তারা কখনও মৌলবাদের সামনে মাথা নত করেনি। তাই যে সরকার বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে গেছে ইনশাআল্লাহ ফের সেই সরকারই থাকবে এবং আমরা সকলে মিলে মৌলবাদের বিরুদ্ধে লড়াই লড়বো।”

ভারত ও বাংলাদেশ উভয়ই পাশাপাশি শান্তিতে সহাবস্থান করবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন ফিরহাদ।

আপনি কি আশা করেন বাংলাদেশে ফের শেখ হাসিনাই ক্ষমতায় আসবেন? এই প্রশ্নের জবাবে পশ্চিমবঙ্গের মন্ত্রী বলেন, “আমি তো অল দ্য বেস্ট বলবো। কারণ যেহেতু অন্য রাষ্ট্র তাই সরাসরি বলতে পারি না। কিন্তু অল দ্য বেস্ট। কারণ আমি শেখ হাসিনার আতিথেয়তায় মুগ্ধ। একজন প্রধনমন্ত্রী যেভাবে আমাদের আতিথেয়তা গ্রহণ করে কলকাতায় এসেছিলেন, আমি তার সাথে মিশেছি, আমি মুগ্ধ। আমি তাকে বলি অল দ্য বেস্ট।”

বাংলাদেশ থেকে কলকাতায় আগত পর্যটকদের বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের ব্যাপারেও আশ্বাস দেন কলকাতার নতুন মেয়র। তিনি বলেন, “পর্যটকদের সমস্যা হলে তা সমাধানের চেষ্টা করব। বাংলাদেশ আমাদের প্রিয় বন্ধু। তারা আমাদের বিশিষ্ট অতিথি, তাই তাদের পাশে আমরা সব সময় থাকবো।”

এদিকে উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে রবিবার থেকে মিশন প্রাঙ্গণে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়েছে বাংলাদেশের বিজয় উৎসব-২০১৮। উপ-হাইকমিশনার তৌফিক হাসনের সভাপতিত্বে এদিন বিকেলে বিজয়ের উৎসব শুরু হয়। ফিরহাদ হাকিম ছাড়াও বিজয় উৎসবে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভারতে নিযুক্ত বাংলাদেশ হাইকমিশনার সৈয়দ মুয়াজ্জেম আলী, ত্রিপুরার মহারাণী বীভু কুমারী দেবী, বাংলাদেশের বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব নাসির উদ্দীন ইউসুফ বাচ্চু।

Comments are closed.