ব্যর্থতা স্বীকার করে ক্ষমা চাইলেন তামিম

ওয়ান নিউজ ক্রীড়া ডেক্সঃ ক্রাইস্টচার্চ টেস্টে চতুর্থ দিনেই পরাজয় বরণের পর মিডিয়ার মাধ্যমে দেশবাসীর কাছে ব্যর্থতার জন্য ক্ষমা চেয়েছেন বাংলাদেশ দলের ভারপ্রাপ্ত টেস্ট ক্যাপ্টেন তামিম ইকবাল। সোমবার ম্যাচ শেষে তামিম বলেন, ‘একজন ক্যাপ্টেন হিসাবে দলকে যেভাবে নেতৃত্ব দেওয়ার দরকার ছিল, আমি তা পারিনি। দ্বিতীয় ইনিংসে আমি যেভাবে আউট হয়েছি এটা মোটেই ক্যাপ্টেন সুলভ ছিল না। এরমাধ্যমেই দল পরাজয়ের বার্তা পেয়ে যায়। তাই পরাজয়ের পুরো দায়ভার আমার। এরজন্যে আমি ক্ষমা প্রার্থী।’

তামিমকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল এভাবে পরাজয়ের কারণ দলের খুব খারাপ দিন নাকি মনোসংযোগের ঘাটতি? এ প্রশ্নের জবাবে কোনও রাখঢাকের চেষ্টা করেননি ক্যাপ্টেন। বলেছেন, ‘খারাপ দিন মোটইনা। গোটা সফরে আমরা যা করেছি এটিও তার আরেকটা পুনরাবৃত্তি। আমাদের আবার একটি সুন্দর মুহূর্ত ছিল যেটার শেষটা আমরা ভালো করতে পারিনি। সব সময় আমরা একটি ভালো পরিস্থিতিতে আসি। সেখান থেকে হেরে যাই।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘আমি ক্যাপ্টেন। আমার ব্যাটিং দিয়ে টিমকে আরও ভালোভাবে নেতৃত্ব দিতে পারতাম। দ্বিতীয় ইনিংসে আমি যেভাবে আউট হয়েছি এর মাধ্যমে নেতা হিসাবে দলকে আমি কোনও ভালো বার্তা দিতে পারিনি। আরও কিছু আউট ছিল যেগুলো আমরা আরও ভালোভাবে সামাল দিতে পারতাম। সিনিয়র ক্রিকেটাররা আরও ভালো করতে পারতেন। সব মিলিয়ে আমরা আরেকটি ভালো সুযোগ নষ্ট করেছি।’

সিনিয়র ক্রিকেটেররা খারাপ করেছেন এটি সবাই দেখেছেন। কিন্তু এই খারাপের কারণ কী? তামিম বলেন, ‘একটা ফলাফলে সিনিয়র ক্রিকেটারদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা অবশ্যই থাকে। আমার কথা আমি বলি। নেতা হিসাবে আমি যদি কোনও অপরাধ করি তা একটি ভালো বার্তা দেয়। এরসঙ্গে আমি এটাও বিশ্বাস করি আমরা ক্রিকেট এগারজনে খেলি। সিনিয়র ক্রিকেটারদের যত দায়িত্ব জুনিয়রদেরও সমান দায়িত্ব।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘আমাদের কাছে সবাই বেশি আশা করে। আমরা সিনিয়ররা যদি ভালো দায়িত্ব পালন করতাম, জুনিয়ররা তা দেখে আরও সাহস পেতো। আমরা আমাদের কাজগুলো ঠিকমতো করতে পারিনি। আমার শট বা অন্যরা যেভাবে আউট হয়েছেন, আসলে আমরা নিজেরাই নিজেদের দোষে আউট হয়েছি। এই ফলাফল আমরা এগারজন মিলেই পরিবর্তন করতে পারতাম। কিন্তু পারিনি। যদি ভুল কম করতাম তাহলে অন্য ফল হতো।’

Comments are closed.