নিউজিল্যান্ডকে ১০৯ রানের লক্ষ্য দিলো বাংলাদেশ

ওয়ান নিউজ ক্রীড়া ডেক্সঃ দলের যখন খারাপ অবস্থা। ব্যাটিংয়ে যখন ধ্বস নেমেছে। তখন ৮ম ও ৯ম উইকেটে নেমে দলের হাল ধরেন বাংলাদেশের দুই প্রেসার তাসকিন আহমেদ ও কামরুল ইসলাম রাব্বি। দলের জন্য মূল্যবান ৩৩ রান আসে তাসকিন আহমেদের ব্যাট থেকে। রাব্বি অপরাজিত থাকেন ২৫ রানে। নিজেদের দ্বিতীয় ইংনিসে বাংলাদেশের সংগ্রহ সব ক’টি উইকেট হারিয়ে ১৭৩ রান। ১০৯ রানের লিড নিয়েছে সফরকারীরা।

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে ম্যাচের তৃতীয় দিন বৃষ্টির কারণে কোনো বল মাঠে না গড়ালেও চতুর্থ দিন নির্দিষ্ট সময়ই খেলা শুরু হয়। নিজেদের প্রথম ইনিংসে ৩৫৪ করে সবকটি উইকেট হারায় স্বাগতিকরা।

৬৫ রানে পিছিয়ে থেকে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নামে বাংলাদেশ। তবে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই ওপেনার তামিম ইকবালের (৮) উইকেট হারায় সফরকারীরা। টিম সাউদির বলে মিচেল স্যান্টনারের ক্যাচে পরিণত হন তিনি। কিন্তু দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে সৌম্য সরকার ও মাহমুদউল্লাহ দেখেশুনে খেলতে থাকেন।

প্রথম ইনিংসে দারুণ খেলার পর এদিনও ভালো কিছু শটে নিজের ইনিংস বড় করতে থাকেন সৌম্য। তবে দলীয় ৫৮ রানের মাথায় কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমের বলে আউট হন বাঁহাতি তিনি। ৬৪ বলে ছয় চারে ৩৬ রান করেন তিনি। উইকেটে বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি সাকিব। ব্যক্তিগত আট রানের সময় সাউদির বলে প্যাভিলিওনের পথ ধরেন।

এরপর নাজমুল হাসান শান্তকে নিয়ে ভালই করছিলেন মাহমুদুল্লাহ ৬৭ বলে ৩৮ রান করে ওয়াগনারের বলে আউট হন তিনি। এর মধ্যে ছিলো ৫টি চারের মার।

একই ওভারে সাব্বির ও সোহানকে বিনা রানে ওয়াটলিংয়ের তালুবন্দি করান ওয়াগনার। মাটি কামড়ে পড়ে থাকা তরুণ বাঁহাতি ব্যাটসম্যান শান্তকে (১২) বোল্ড করেন ট্রেন্ট বোল্ট। শান্তের বিদায়ের পর শূন্য রানে জীবন পাওয়া মেহেদী হাসান মিরাজ ফিরেন ৪ রানে। ট্রেন্ট বোল্টের শর্ট বলে টম ল্যাথামকে শর্ট লেগে সহজ ক্যাচ দেন এই তরুণ।

মিরাজের বিদায়ের পর নবম উইকেটে ৫১ রানের জুটি গড়ে লিড ১০০ পার করেন তাসকিন আর রাব্বি। একটি চার ও দুটি ছক্কায় ৩০ বলে ৩৩ রান করে বোল্টের বলে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন তাসকিন। এরপর রুবেল হোসেনকে ফিরিয়ে ওয়াটলিংয়ের তালুবন্দি করে বাংলাদেশকে ১৭৩ রানে গুটিয়ে দেন টিম সাউদি।

এর আগে বাংলাদেশ থেকে প্রথম ইনিংসে ২৯ রানে পিছিয়ে থাকা কিউইরা চতুর্থ দিনে বাকি তিন উইকেট হারিয়ে ‍আরও ৯৪ রান যোগ করে। শেষ পর্যন্ত ৩৫৪ করতে সমর্থ হয় স্বাগতিকরা।

Comments are closed.