কক্সবাজারে অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার

ওয়ান নিউজঃ কক্সবাজার সদর উপজেলার ঝিংলজা ইউনিয়নের পশ্চিম মোক্তারকুল এলাকায় ভাড়াবাসা থেকে তাসলিমা আকতার (২২) নামে এক অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে কক্সবাজার সদর মডেল থানা পুলিশ মরদেহটি উদ্ধার করে। নিহত গৃহবধূ তাসলিমা পশ্চিম মুক্তারকুল এলাকার মৃত রমজানের মেয়ে।

ঘটনার পর থেকে নিহতের স্বামী ফারুক পলাতক রয়েছে। ঝিংলজা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান টিপু সুলতান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

নিহতের মা রাজিয়ার বেগমের বরাত দিয়ে ঝিলংজা ইউপি চেয়ারম্যান টিপু সুলতান জানান, দুপুরের পর স্ত্রী তসলিমাকে নিয়ে তাদের ভাড়াবাসায় প্রবেশ করে ফারুক। সন্ধ্যার আগে শাশুড়ি রাজিয়াকে ফোন করে ফারুক জানায়, তসলিমাকে পাওয়া যাচ্ছে না। মাগরিবের আগে মা রাজিয়া মেয়েকে খুঁজতে এসে বাড়িতে ঢুকে দেখেন তসলিমার মৃতদেহ পড়ে আছে। এ সময় ফারুক বাসায় ছিল না। এটি জানার পর ঘটনাস্থল গিয়ে পুলিশকে খবর দেয়া হয়।

চেয়ারম্যান আরও জানান, পরিচয়সূত্র থেকে মুন্সিগঞ্জের বাসিন্দা ফারুকের সাথে তাসলিমার পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। তসলিমা পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা বলে জানিয়েছে মা রাজিয়া।

স্থানীয়দের ধারণা, মাদক কিংবা অন্য কোনো অপরাধকর্মে জড়িত হয়ে ফারুক কক্সবাজারে এসে আশ্রয় নিয়েছিল। এক সময় পিতৃহীন তসলিমার পরিবারের সাথে পরিচয়ের পর সখ্যতা ঘটে। সুযোগটি কাজে লাগিয়ে তসলিমাকে পারিবারিকভাবে বিয়েও করে ফারুক। তাকে নিয়েও গিয়েছিল। মাস দুয়েক আগে আবার মুক্তারকুল ফিরে আসে এবং ভাড়া বাসায় ওঠে তারা। ফারুক কী কাজ করত কেউ দেখেনি।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি (তদন্ত) খায়রুজ্জামান জানান, মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ পাঠানো হয়েছে। পারিবারিক কলহের জেরে হত্যার ঘটনা ঘটতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা হচ্ছে। ময়নাতদন্তের পর বিষয়টি স্পষ্ট হবে।

Comments are closed.