জিএম রহিমুল্লাহর জানাযা কাল সকাল সাড়ে ১০টায় কক্সবাজার কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠে, বাদে জোহর ভারুয়াখালী

ওয়ান নিউজঃ কক্সবাজার সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও কক্সবাজার জেলা জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল জিএম রহিমুল্লাহর নামাজে জানাযা বুধবার  (২১নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টায় কক্সবাজার কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠে এবং বাদে জোহর ভারুয়াখালীতে অনুষ্ঠিত হবে। মরহুমের স্বজনেরা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জিএম রহিমুল্লাহ হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মঙ্গলবার (২০ নভেম্বর) কক্সবাজার শহরের হোটেল সাগর গাঁওতে মারা যান। এর আগের রাতে তিনি হোটেলের চতুর্থ তলার ৩১৬ নম্বর কক্ষে একাই ঘুমান বলে জানান হোটেল সাগরগাঁওয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও জিএম রহিমুল্লাহর শ্যালক শাহেদুল ইসলাম।

তিনি জানান, জিএম রহিমুল্লাহ মাঝে মধ্যে হোটেল সাগরগাঁওতে রাত যাপন করতেন। সোমবার রাতেও এসে হোটেলের চার তলার ৩১৬ নং কক্ষে ঘুমাতে যান। শাহেদ জানান, হোটেলে থাকলে সকালে ফোন করে নাস্তা আনাতেন। কিন্তু মঙ্গলবার তিনি তা করেননি।  দুপুর ২টা পর্যন্ত ঘুম থেকে না উঠায় দরজা ধাক্কা দিয়েও কোনো সাড়া-শব্দ পাওয়া যায়নি।পরে ভ্যান্টিলেটর দিয়ে উঁকি মেরে দেখেন- জিএম রহিম উল্লাহ উপুড় হয়ে ঘুমিয়ে আছেন। এরপর ২টা ৪০ মিনিটে বিকল্প চাবি দিয়ে দরজা খুলে দেখা যায় তিনি মারা গেছেন।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ ফরিদ উদ্দীন খন্দকার জানান, উপজেলা চেয়ারম্যান জিএম রহিমুল্লাহর মৃত্যুর খবর পেয়ে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে। আইনগত ব্যবস্থা শেষে পরিবারের কাছে কাছে লাশ হস্তান্তর করা হবে।

জিএম রহিমুল্লাহ কক্সবাজার সদরের ভারুয়াখালীর বানিয়াপাড়ার বাসিন্দা মৃত আব্দুল হাকিমের ছেলে। তিনি ভারুয়াখালী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান। তিনি ৪ মেয়ে ও ১ ছেলের জনক।

এদিকে জিএম রহিম উল্লাহর মৃত্যুর খবর পাওয়ার সাথে সাথে বিপুল মানুষ হোটেল সাগর গাঁওয়ের সামনে ভিড় করেছে।
এক নজর দেখতে মানুষ হুমড়ি খেয়ে পড়ছে। অনেকে লাশ দেখে হতবিহবল হয়ে পড়ে।

Comments are closed.