জার্মান ক্লাসিকোয় বায়ার্নকে হারাল ডর্টমুন্ড

ওয়ান নিউজ ক্রীড়া ডেক্সঃ এল ক্লাসিকো, মাদ্রিদ ডার্বি যেমন রোমাঞ্চের। তেমনি প্রিমিয়ার লিগের ডার্বি দেখতেও মুখিয়ে থাকে দর্শকরা। জার্মান ক্লাসিকোও কোন অংশে কম নয়। শনিবার রাতে বায়ার্ন মিউনিখ ও বরুশিয়া ডর্টমুন্ড তা বুঝিয়ে দিয়েছে। ঘরের মাঠে ডর্টমুন্ড হারিয়েছে বাভারিয়ানদের। ম্যাচে দারুণ উত্তেজনা ছড়িয়েছে দু’দল। বায়ার্ন এগিয়ে গেছে তো ডর্টমুন্ড সমতায় ফিরেছে। আবার বায়ার্ন গোল দিয়েছে, শোধ করেছে ডর্টমুন্ড। কিন্তু ‘সুপার সাব’ পাকো আলকাসের ম্যাচের ‘নায়ক’বনে গেছেন। বায়ার্নের হাত থেকে ম্যাচ ৩-২ গোলে বের করে নিয়েছেন তিনি।

ম্যাচের প্রথমার্ধে বায়ার্ন মিউনিখকে এগিয়ে নেন পোলিশ স্ট্রাইকার লেভানডভস্কি। তার ২৬ মিনিটের গোলের পর দ্বিতীয়ার্ধের ৪৯ মিনিটে গোল শোধ দেন জার্মান তারকা মার্কোস রিউস। পেনাল্টি থেকে ৪৯ মিনিটে দলকে সমতায় ফেরান তিনি। এরপর আবার লেভার গোল। আবার ডর্টমুন্ডকে সমতা ফেরান দলটির অধিনায়ক রিউস। ম্যাচের ৫২ মিনিটে গোল করে বায়ার্নকে এগিয়ে নেন লেভানডভস্কি। আর দারুণ ফর্মে থাকা রিউস ৬৭ মিনিটে গোল করে দলকে সমতায় ফেরান।

এরপর বদলি নেমে জার্মান ক্লাসিকোর ‘নায়ক’ বনে যান পাকো আলকাসের। দারুণ ফর্মে থাকা এই তারকা ম্যাচের ৭৩ মিনিটে গোল করেন। ছয় মিনিটের ব্যবধানে দুই গোল করে বরুশিয়া ডর্টমুন্ড। ‘সুপার সাব’ আলকাসেরের গোলে প্রথম লিড নেয় চলতি বুন্দেসলিগার মৌসুমে পয়েন্ট টেবিলে শীর্ষে থাকা ডর্টমুন্ড। ওই লিড নিয়েই মাঠ ছাড়ে তারা। এ নিয়ে সর্বশেষ ছয় দেখায় দুই জয় পেলো তারা। এর আগে তিন জয় ছিল বায়ার্নের দখলে। এক ড্র এবং এক জয় ছিল ডর্টমুন্ডের।

পয়েন্ট টেবিলেও এই জয় রাজত্ব এনে দিয়েছে রিউসদের। পয়েন্ট টেবিলে বায়ার্নের চেয়ে সাত পয়েন্ট এগিয়ে তারা। আর বায়ার্নের টেবিলে অবস্থান তিনে। বার বার কোচ বদল করা আর তারকা খেলোয়াড়দের পড়তি ফর্ম বায়ার্নের দূরাবস্থার মূল কারণ। আর সেই সুযোগ ২০১১-১২ মৌসুমের পর লিগে রাজত্ব করছে ডর্টমুন্ড। আট বছর আগের ওই মৌসুমে সর্বশেষ শিরোপা ঘরে তুলেছিল তারা। এবার তাদের সামনে আছে সেই সুযাগ। যদিও মৌসুমের কেবল শুরু। তারপরও ডর্টমুন্ড যদি পথ না হারায় তবে জমজমাট বুন্দেসলিগা আভাস মেলে।

Comments are closed.