মালয়েশিয়ায় অবৈধ শ্রমিকদের জন্য কঠোর আইন

ওয়ান নিউজ ডেক্সঃ মালয়েশিয়ার শিল্প-কারখানায় অবৈধ শ্রমিকদের নিয়োগ দেওয়া হলে ওই নিয়োগকারীকে এক লাখ রিংঙ্গিত জরিমানা করা হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রীর দফতর বিষয়ক মন্ত্রী দাতুক পল লো সেং কুয়ান। সোমবার লো সেং কোয়ান এ কথা জানা।

মন্ত্রী বলেন, দেশের নিরাপত্তার দিক বিবেচনা করে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। আগামী মার্চ মাসে সংশোধনের রিপোর্ট সংসদে পেশ করা হবে। রিপোর্টে কমিটি যে সমস্ত প্রস্তাব দিয়েছে তা থাকবে কি থাকবে না সেটি সংসদ নির্ধারণ করবে। এদিকে সরকারের পক্ষ থেকে নেওয়া এমন সিদ্ধান্তে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ব্যবসায়ী নেতারা।

ইমিগ্রেশন মহাপরিচালক দাতুক সেরি মুস্তাফার আলী বলেন, এটিকে একটি গুরুতর অপরাধ হিসাবে ধরা হচ্ছে কারণ দিন দিন মালয়েশিয়ায় অবৈধ শ্রমিকের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প (এসএমই) মালয়েশিয়ান এসোসিয়েশন প্রধান মাইকেল কাং বলেন, সরকারের এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হলে, অনেক কোম্পানি বন্ধ হয়ে যাবে। অনেক কোম্পানি তাদের ব্যবসা আর সাধারণভাবে পরিচালনা করতে পারবে না। এমনিতেই মালয়েশিয়ান অর্থনৈতিক অবস্থা দিন দিন খারাপ হচ্ছে। যদি এমনটা হয় তাহলে মালয়েশিয়ান অর্থনীতি আরও খারাপ হয়ে যাবে।

অন্য আরেক সংলাপ অধিবেশনে ইমিগ্রেশন বিভাগের মহাপরিচালক দাতুক সেরি মুস্তাফার আলী বলেন ১ জানুয়ারী থেকে নিয়োগকারীরা তাদের শ্রমিকদের বাৎসরিক লেভী ফী প্রদান করতে হবে। কোনভাবেই তা শ্রমিকদের কাছ থেকে আদায় করা যাবে না। মালয়েশিয়ান বেশিরভাগ ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তারা অবৈধ শ্রমিকদের কাজে নেয়। কারণ বিদেশ থেকে শ্রমিকদের এদেশে নিয়ে আসা এবং ভিসা প্রসেসিং করা এই সব কিছুই অনেক জটিল হয়ে পড়েছে। তিনি আরো বলেন, বর্তমানে ৮০ ভাগ ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তারা অবৈধ শ্রমিকদের কাজে নিয়েছে। সবাইকে বৈধ কাজের ভিসা দেয়া হবে সেটার কোনো গ্যারান্টি নেই।

বিদেশি শ্রমিক আনার একটি সহজ ও সঠিক পদ্ধতি থাকা দরকার। মালয়েশিয়ায় এখনো সাড়ে ৬ লাখের বেশি অবৈধ শ্রমিক রয়েছে বলে তিনি দাবি করেন। মালয়েশিয়ার মালয় ব্যবসায়ী ও শিল্প সমিতির সভাপতি মোহামেদ এজাত আমির বলেন, ইমিগ্রেশন বিভাগ এই প্রক্রিয়া চালু করলে ক্যাশ ফ্লো এবং ফাইন্যান্সিং-এ ভাঙন দেখা দেবে শিল্প কারখানাগুলোতে।

গত বছরের ২৮ জুন দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, মালয়েশিয়া সরকারের দেয়া অবৈধ শ্রমিকদের রি-হায়ারিং প্রোগ্রামের যারা অংশ গ্রহণ করবে না এবং যেই কোম্পানির মালিকগণ অবৈধ শ্রমিকদের দিয়ে কাজ করিয়ে নিচ্ছে। তাদের জন্য মালয়েশিয়ার আইন অনুযায়ী ১৯৫৯/৬৩ অনুচ্ছেদের ৫৫ (বি) ধারা মোতাবেক আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে। দেশটির ইমিগ্রেশন বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, দেশটির কোন স্থানে যদি অবৈধ শ্রমিক পাওয়া যায় তাহলে মালিকপক্ষ ও কর্মচারীকে ৫০ হাজার রিঙ্গিত জরিমানাসহ ১ বছরের জেল কার্যকর করা হবে।

অন্য আরেকটি আইনে কোন মালিকপক্ষ যদি ৫ জনের অধিক অবৈধ শ্রমিক রাখে তাহলে ৫ বছরের জেল কার্যকর হবে।

Comments are closed.