বিএনপি নৈরাজ্য সৃষ্টির পায়তারা করছে : হাছান মাহমুদ

ওয়ান নিউজঃ আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বিএনপি নেতা রিজভী আহমেদের বক্তব্যেই স্পষ্ট হয়েছে তারা দেশে নৈরাজ্য সৃষ্টি করতে চান।

বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অনুষ্ঠিত এক মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

সব ধরনের নৈরাজ্য ও অগণতান্ত্রিক পথ থেকে ফিরে এসে বিএনপিকে জনগণের কাছে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

মানববন্ধনে ড. হাছান মাহমুদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, গত তিন বছরে সরকার জনগণকে উন্নয়নের যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল তার চেয়েও অনেক বেশি দিয়েছে। দেশ আজ স্থিতিশীল।

আওয়ামী লীগের এই মুখপাত্র বলেন, সারা বিশ্ব যখন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার সরকারের প্রশংসা করছে, ঠিক সেই সময়ে বিএনপি জোট দেশে নৈরাজ্য সৃষ্টির পাঁয়তারা চালিয়ে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, অতীতে তারা (বিএনপি) একশ’ দিন এই দেশের মানুষকে অবরুদ্ধ করে রেখেছিল। তাদের হাত থেকে মানুষ তো বটেই পশুপাখি-গাছপালা কোনোটাই রক্ষা পায়নি। পেট্রলবোমা দিয়ে নৃশংসভাবে হত্যাযজ্ঞ চালিয়েছে তারা।

রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপি ঘোষিত সাত জানুয়ারির সমাবেশের অনুমতি না দেওয়ার কারণ সম্পর্কে তিনি বলেন, গোয়েন্দা সংস্থার কাছে তথ্য ছিল, তারা (বিএনপি) সমাবেশের নামে বিশৃঙ্খলা ও নৈরাজ্য সৃষ্টির পরিকল্পনা করছে। এমনকি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের গাছগুলোও তাদের হাত থেকে রক্ষা পেত না। তাই তাদেরকে এই সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হয়নি।

বিএনপি নেতাদের সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, মিথ্যাচারের রাজনীতি বাদ দিয়ে আপনারা ২০১৯ সালের অনুষ্ঠেয় জাতীয় নির্বাচনের প্রস্তুতি নিন। আর এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বর্তমান সরকারের অধীনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে।

এতে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগ নেতা এম এ করিম, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুণ সরকার রানা, আওয়ামী লীগ নেতা মিনহাজ উদ্দিন মিন্টু, রাজিয়া মোস্তফা আবদুল হাই খান, শাহ জামাল তোতা।

Comments are closed.