টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ে উন্নতির হাতছানি বাংলাদেশের

ওয়ান নিউজ ক্রীড়া ডেক্সঃ নিউজিল্যান্ড সফরের তিনভাগের দুইভাগ শেষ। অর্থাৎ, ওয়ানডে ও টি-টুয়েন্টি সিরিজ এখন অতীত। যদিও দুই সিরিজেই হোয়াইটওয়াশের লজ্জা কখনো অতীত হবে না। তবে সেটাই এখন বাস্তবতা। আরেকটি বাস্তবতা হলো সফরে এখনো দুটো টেস্ট পরীক্ষা বাকি। যাতে দারুণ কিছু করে দেখালে মিলবে দুই হোয়াইটওয়াশের ক্ষতে প্রলেপ দেওয়ার মত কিছু। সোজা কথায়, টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে টপকে যাওয়ার হাতছানি মুশফিকুর রহিমের দলের সামনে।

দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের প্রথমটিতে আগামী ১২ জানুয়ারি নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। ওয়েলিংটনের পর ক্রাইস্টচার্চে দ্বিতীয় টেস্টটি শুরু হবে আগামী ২০ জানুয়ারি। দুই ম্যাচের একটিতে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে পারলেই আইসিসি টেস্ট দলের র‌্যাঙ্কিংয়ে এক ধাপ এগিয়ে ক্যারিবীয়দের পেছনে ফেলবে টাইগাররা।

সুযোগ থাকছে দুই টেস্টের কোনটিতে না জিতলেও। সেক্ষেত্রে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে পেছনে ফেলতে দুই ম্যাচে ড্র করে মাঠ ছাড়তে হবে কিউদের বিপক্ষে। তাতে নিজেদের টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ৮-নম্বরে উঠে যাবে মুশফিকুর রহিমের দল।

আইসিসির টেস্ট খেলুড়ে ১০ দলের মধ্যে ৯-নম্বরে আছে বাংলাদেশ। যেজন্য ঝুলিতে আছে ৬৫ পয়েন্ট। আর ৬৯ পয়েন্ট নিয়ে একধাপ ওপরে আট নম্বরে অবস্থান ওয়েস্ট ইন্ডিজের। সেখানে ৯৬ পয়েন্ট নিয়ে ছয় নম্বরে রয়েছে নিউজিল্যান্ড। কিউইরা ওপরে থাকায় বাংলাদেশ তাদের বিপক্ষে জয় বা ড্র করলেই রেটিং পয়েন্ট বাড়বে মুশফিকদের।

যাতে ২-০ ব্যবধানে জিতলে ৭৯ পয়েন্ট হবে বাংলাদেশের। একই ফলের জন্য নিউজিল্যান্ডের পয়েন্ট দাঁড়াবে ৯১-এ। আর ১-০ এর জন্য লাল-সবুজদের পয়েন্ট হবে ৭৬, কিউরা তাতে ৯২ পয়েন্টে পৌঁছাবে। ১-১ ব্যবধানে ড্র করতে পারলে বাংলাদেশ পাবে ৫ পয়েন্ট। নিউজিল্যান্ড পাবে ২ পয়েন্ট। ১-০ ব্যবধানে হারলে আগের পয়েন্টই থাকবে মুশফিকদের, কেন উইলিয়ামসদের ১ পয়েন্ট বেড়ে যাবে। অন্যদিকে ‘কিউইওয়াশ’ হলে বাংলাদেশ হারাবে ৩ পয়েন্ট। সেখানে ৯৮ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের ৫-এ উঠে যাবে স্বাগতিকরা।

Comments are closed.