সাদ্দামকেই দরকার ছিল ইরাকে : সিআইএ কর্মকর্তা

ওয়ান নিউজ ডেক্সঃ মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা এবং নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দুজনেই মনে করেন, ইরাকে মার্কিন হামলা ভুল ছিল। ইরাকে ইঙ্গ-মার্কিন ও ন্যাটো জোটের হামলার পর থেকেই মধ্যপ্রাচ্য আগের চেয়ে উত্তপ্ত হতে শুরু করে। আরব বসন্ত ও তৎপরবর্তী ঘটনাপ্রবাহ উসকে দেওয়ার ক্ষেত্রে ইরাক যুদ্ধ গুরুত্বপূর্ণ প্রভাবক হিসেবে ভূমিকা পালন করেছে। ইরাকে করা ভুলের পরিপ্রেক্ষিতেই আইএস সংকট ও সিরিয়ায় গৃহযুদ্ধ শুরু হয়েছে। এজন্য ওবামা প্রশাসনের বেলায় দেখা যাচ্ছে তারা সিরিয়ায় হস্তক্ষেপ করছে না।

শুধু তাই নয়, ইরাকে সাদ্দাম হোসেনকে অপসারণ করা ভুল ছিল বলে মনে করছেন সিআইএ-এর এক তদন্ত কর্মকর্তা। জন নিক্সন নামের ওই সিআইএ কর্মকর্তা ২০০৩ সালে সাদ্দাম হোসেনকে জিজ্ঞাসাবাদও করেছিলেন। চলতি ডিসেম্বরে প্রকাশিত তার বই ‘Debriefing the President : The Interrogation of Saddam Hussein’-এ তিনি সাদ্দাম হোসেনের সঙ্গে আলাপচারিতার কথা তুলে ধরেছেন।

ওই বইয়ে জন নিক্সন বলেন, “যখন আমি সাদ্দাম হোসেনকে জিজ্ঞাসাবাদ করছিলাম, তখন তিনি বলেছিলেন-‘তোমরা ব্যর্থ হতে যাচ্ছো। তোমরা দেখবে ইরাক শাসন করা সহজ নয়।’ আমি আরও আগ্রহী হয়ে জিজ্ঞেস করলাম, কেন এমনটি ভাবছেন? তখন সাদ্দাম হোসেন বলেন, ‘তোমরা ইরাকে ব্যর্থ হতে যাচ্ছো, কারণ তোমরা তাদের ভাষা জানো না, তাদের ইতিহাস জানো না এবং তোমরা আরব মনকে ধরতে পারো না’।”

এ পরিপ্রেক্ষিতেই সিআইএর ওই কর্মকর্তা মনে করেন ইরাক শাসনের জন্য, ‘এই বহু জাতি-গোষ্ঠীর মধ্যে কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠার জন্য’ সাদ্দাম হোসেনের মতো কঠোর শাসক দরকার ছিল। তিনি সুন্নি চরমপন্থা ও ইরান প্রভাবিত শিয়াদের শক্তিমত্তাকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে পেরেছিলেন।

নিক্সন তার বইয়ে আরও লেখেনে: ‘যদিও সাদ্দাম হোসেনকে আমি অপছন্দ করতাম; কিন্তু এখন তার প্রতি শ্রদ্ধা পোষণ করতে কৃপণতা করতে পারছি না এই ভেবে যে, তিনি যতদিন ক্ষমতায় ছিলেন ততদিন বিভক্ত ইরাককে ঐক্যবদ্ধ রাখতে পেরেছিলেন।’

একবার নাকি সাদ্দাম হোসেন নিক্সনকে বলেছিলেন, ‘আমার (সাদ্দাম হোসেন) আগে শুধু কলহবিবাদ ও তর্ক-বিতর্ক হতো। আমি সবকিছুর ইতি টেনেছি এবং জনগণকে একমত করিয়েছি।’ সূত্র: এনডিটিভি।

Comments are closed.