জাকের হোসেনর নেতৃত্বে সরকারি কলেজের দখলকৃত জমি উদ্ধার – ৭ দিনের আল্টিমেটাম

সানজীদুল আলমঃ-

দক্ষিণ চট্টগ্রামের সর্বশ্রেষ্ঠ বিদ্যাপীঠ খ্যাত কক্সবাজার সরকারি কলেজের অবৈধ দখল হওয়া কিছু দিন ধরে পুরো কক্সবাজার জুড়ে তীব্র নিন্দার ঝড় উঠে৷

ইতিপূর্বে আরো কয়েক বার এমন অবৈধ দখলদার তথা জামাত-শিবির কতৃক দখলের চেষ্টা করলে ও কলেজ প্রশাসন এবং কলেজ ছাত্রলীগের নেতা কর্মীর মিলে তা প্রতিহত করে। কিন্তু করোনার এই মুহুর্তে যখন কলেজের কার্যক্রম বন্ধ হয়ে আছে সেই সুযোগে অবৈধ দখলদার বাহিনী আবার মাথাচাড়া দিয়ে উঠে।

আজ (৬জুলাই) প্রতিবারের মত কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি জাকের হোসেন তার কর্মীদের নিয়ে দখল হওয়া জমি উদ্ধারে ছুটে যান।

এসময় কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি জাকের হোসেন সকলের উদ্দেশ্যে বলেন, এই কলেজ পুরো কক্সবাজারবাসীর সম্পদ। আর এই সম্পদ রক্ষা করার দায়িত্ব আমাদের সকলের।

তবে আজ ভালো নেই প্রিয় ক্যাম্পাস। ভূমি দস্যুদের করালগ্রাসে বার বার নিষ্পেষিত হচ্ছে, জামাত-শিবিরের মত সন্ত্রাসী দল যখন কলেজে ক্যাম্পাসে ত্রাসের রাজত্ব করত তখন থেকেই কলেজের জমি অবৈধভাবে দখল হতে থাকে। জামায়ত নেতার ব্যাবসায়িক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, দোকান পাট ও ঘর-বাড়ি নির্ণাম করে অবৈধভাবে দখল করে রেখেছে প্রিয় ক্যাম্পাসের মুখখানি।
তাদের এই ভূমি দস্যুতার বিরুদ্ধে কেউ কথা বলতে চায় না সহজে।বিভিন্ন কলা-কৌশলে তারা এখনও কলেজের জায়গায় তাদের অবৈধ দোকান-পাট আর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চালিয়ে যাচ্ছে। বার বার আমাদের প্রাণের ক্যাম্পাস ভূমিদস্যুতার কবলে পড়ছে।

তিনি জেলাবাসীর কাছে উদাত্ত আহবান করে বলেন আমাদের কক্সবাজার সরকারি কলেজের সাধারণ ছাত্র-ছাত্রীদের সম্পদ এই কলেজকে রক্ষায় সকলকে এগিয়ে আসতে হবে।

তিনি আরো বলেন আমরা আপাতত আংশিক উচ্ছেদ করছি। কলেজ প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন আমাকে আস্বস্ত করেন অতি দ্রুত অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করবে। এই বিষয়ে যেহেতু আদালতে মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছেন ৷ আমরা কক্সবাজার সরকারি কলেজ ছাত্রলীগ আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে কলেজ প্রশাসনের নির্দেশ মেনে নিয়ে আগামী এক সপ্তাহ সময় বেধে দিলাম।

আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে যদি এই অবৈধ দোকান – পাট উচ্ছেদ করা না হয় তাহলে কক্সবাজার সরকারি কলেজ ছাত্রলীগ বৃহত্তর আন্দোলনের ডাক দিবে।  যেকোনো উপায়ে কলেজের অবৈধভাবে দখল হওয়া ভূমি উদ্ধার করবে৷

Comments are closed.