জ্ঞানপাঠাগারের উদ্যোগে “বৃক্ষরোপণ সপ্তাহ’২০ “সম্পন্ন

Tree-3.jpg

মোঃ খাইরুল ইসলাম

রামু উপজেলাধীন রশিদনগর ইউনিয়নের পানিরছড়ায় অবস্থিত জ্ঞান পাঠাগার-এর আয়োজনে ৭ম দিনে পানিরছড়া মুরাপাড়া ও অন্যান্য বাদ পড়া এলাকায় বৃক্ষরোপণের মাধ্যমে “বৃক্ষরোপণসপ্তাহ’২০” সম্পন্ন হয়েছে আজ। “গাছে গাছে সবুজ দেশ, আমার সোনার বাংলাদেশ” এ-ই স্লোগানকে সামনে রেখে পাঠাগার কর্তৃপক্ষ এ অভিযান পরিচালনা করেছে।

বর্তমানে বাংলাদেশে বৃক্ষের পরিমাণ প্রয়োজনের তুলনায় যথেষ্ট নয়। এ বিশাল প্রয়োজনের বিপরীতে তাদের এ ক্ষুদ্র প্রয়াস বেশি প্রভাব না ফেললেও জনমনে সচেতনতা তৈরি করবে বলে বিশ্বাস কর্তৃপক্ষের।

এ উদ্যোগ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সদস্য ও শুভাকাঙ্ক্ষীর ভিত্তিতে এলাকাকে ৭টি জোনে ভাগ করা হয়েছিল। তারা নার্সারি থেকে বিভিন্ন ফলজ, বনজ ও ঔষধি চারা সংগ্রহ করে পাঠাগারের সদস্য ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের বাসায় গিয়ে রোপণ করেছে।

উদ্বোধনী দিনের কার্যক্রম শুরু হয় ইউনিয়নের বড় ধলীর ছড়া ও পানির ছড়া লামার পাড়ায় বৃক্ষরোপণের মাধ্যমে। দ্বিতীয় দিন উল্টাখালী, জোয়ারিয়ানালা ও ভারুয়াখালী , তৃতীয় দিন হরিতলা, নাছিরা পাড়া ও গ্যারেজ, চতুর্থ দিন কাদমর পাড়া, পাহাড়তলী ও মাছুয়াখালী, পঞ্চম দিন জেটিরাস্তা ও লম্বাঘোনা,ষষ্ঠ দিন পানির ছড়া মুরাপাড়ার একাংশ এবং সপ্তম দিন পানির ছড়া মুরাপাড়া ও বাদ পড়া অন্যান্য এলাকায় বৃক্ষরোপণ করা হয়।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, গাজীপুর-এর পিএইচডি গবেষক, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর-এর সহকারী অধ্যাপক জনাব সুলতান আহমদ জ্ঞান পাঠাগারের এমন কার্যক্রম দেখে বলেন “বৃক্ষের অস্তিত্ব টিকে থাকা মানেই মানবজাতির অস্তিত্ব টিকে থাকা। রশিদনগর জ্ঞান পাঠাগার কর্তৃক বিভিন্ন জাতের চারা গাছ বিতরণ ও রোপণের মতো মহৎ কর্ম সম্পাদনে তাদের অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। পাশাপাশি সকলকে এই ধরনের মহৎ কর্মের উদাহরণ থেকে শিক্ষা নেওয়ার অনুরোধ করছি।”

নাদেরুজ্জামান উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক জনাব মুফিদুল আলম ২০টি ফলজ গাছের চারা, ধলির ছড়া বনবিটের বনরক্ষা যোদ্ধা জনাব ফরহাদ উদ্দিন ১০টি ঔষধি গাছের চারাসহ যেসকল শুভাকাঙ্ক্ষী ও সদস্য আর্থিক সহায়তা করেছেন তাদের প্রতি অকৃত্রিম ভালোবাসা ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছে বৃক্ষরোপণ সপ্তাহ পরিচালনা কমিটি।

এছাড়াও বৃক্ষরোপণ করতে গিয়ে যেসকল শুভাকাঙ্ক্ষী বই উপহার দিয়েছেন এবং যেসকল সদস্য স্বেচ্ছাশ্রম দিয়েছে তাদেরকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়েছে তারা।

উল্লেখ্য, জ্ঞান পাঠাগার ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে কিছু বইপ্রেমী তরুণের হাত ধরে প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রতিষ্ঠাকাল থেকে বই পড়ার অভ্যাস গড়ার পাশাপাশি বিভিন্ন জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। এ পর্যন্ত প্রায় ১৫০ জন সদস্য নিয়মিত পাঠাগারের বই পড়া কার্যক্রমে সম্পৃক্ত আছে। এছাড়া যেসকল সদস্য পাঠাগারে উপস্থিত হয়ে বই সংগ্রহ করতে পারে না, তাদের ফোনের মাধ্যমে যোগাযোগ করে বাড়িতে গিয়ে বই সরবরাহ করা হয়। বর্তমানে পানির ছড়া মুরাপাড়া জামে মসজিদের পাশে ভাড়া করা কক্ষে পাঠাগার কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।