চকরিয়ায় মহাসড়কে র‌্যাবের ওপর উচ্ছৃঙ্খল জনতার হামলা, গুলিবিদ্ধ ২

Hamla.jpg

ফাইল ছবি।

চকরিয়া প্রতিনিধি :

কক্সবাজারের চকরিয়ায় মহাসড়কে ইয়াবা ও অস্ত্র কারবারিসহ চিহ্নিত অপরাধীদের ধরতে র‌্যাবের একটি বিশেষ টিম অভিযান চালায়। অভিযান চালানোর সময় র‌্যাব সদস্যদের ওপর চড়াও হয়েছে উচ্ছৃখল একদল গ্রামবাসি। এ সময় উচ্ছৃঙ্খল লোকজনের ছোঁড়া ইট-পাটকেলের আঘাতে কয়েকজন র‌্যাব সদস্য রক্তাক্ত জখম হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার রাতে কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়কের উপজেলার ফাঁসিয়াখালীস্থ রাস্তার মাথার দক্ষিণ পাশে এ ঘটনা ঘটে।
পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, অভিযানের সময উচ্ছৃঙ্খল লোকজনের ছোঁড়া ইট-পাটকেল নিক্ষেপে আঘাতে র‌্যাব সদস্য রক্তাক্ত হলে আত্মরক্ষায় র‌্যাবও ঘটনাস্থলে বেশ কয়েকরাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে। পরে স্থানীয় লোকজন দুইজনকে গুলিবিদ্ধ
অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন।

হামলার ঘটনায় জড়িত সন্দেহে র‌্যাব সদস্যরা ঘটনাস্থল থেকে একাধিক উচ্ছ্বৃঙ্খল ব্যক্তিকে আটক করেছে। পরে তাদের থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চকরিয়ার ফাঁসিয়াখালী রাস্তার মাথা থেকে

একটু দক্ষিণে নাজেম উদ্দিনের গ্যারেজের আশপাশে একদল অপরাধী অবস্থান নেয়। একই সময় উৎপেতে থাকা র‌্যাব সদস্যরা অপরাধী ধরতে অভিযান শুরু করলে আশপাশের লোকজন র‌্যাব সদস্যদের লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছুঁড়ে মারেন। এমনকি মসজিদের মাইকে ডাকাত পড়েছে বলে ঘোষণা দিয়ে চারদিক থেকে লোকজন জড়ো করা হয়। এই পরিস্থিতিতে উভয়পক্ষে চলে ধাওয়া পাল্টাধাওয়া।

একপর্যায়ে র‌্যাবের কয়েকজন আহত হলে র‌্যাবও আত্মরক্ষায় পাল্টা অবস্থান নেয়। এ সময় বেশ কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে র‌্যাব।

ঘটনাস্থল থেকে র‌্যাব মনজুর আলম মনু ও নুরুল ইসলাম নামের দুইজনকে আটক করে নিয়ে যায় বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা.রিয়াফাত আজিম জানান, সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার পর ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের দুইজনকে হাসপাতালের জরুরী বিভাগে আনা হয়। দুইজনই গুলিবিদ্ধ হওয়ায় তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয় কক্সবাজার সদর হাসপাতালে।

কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো গুলিবিদ্ধ দুইজন হলেন ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের ভেণ্ডিবাজার এলাকার মৃত নজির আহমদের ছেলে নুরুল আলম (৪০) ও একই এলাকার ছৈয়দ আহমদের ছেলে মো. ইসমাইল (১৭)।

অপরাধী গ্রেপ্তার অভিযানে থাকা র‌্যাব কক্সবাজার ক্যাম্পের ইনচার্জ মেজর মেহেদী হাসান রাতে থানায় অবস্থান করার সময় জানান, অপরাধী গ্রেপ্তারের এই অভিযানের সময় হামলায় র‌্যাবের বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। এ বিষয়ে পরে বিস্তারিত জানানো হবে।

এ ব্যাপারে চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাবিবুর রহমান বলেন, তালিকাভুক্ত অপরাধীকে ধরতে র‌্যাবের অভিযানের সময় হামলা করা হয়। হামলায় র‌্যাবের মেজর মেহেদী হাসানও আহত হয়েছেন।

র‌্যাবের অভিযানের সময় কোন কিছু উদ্ধার বা কেউ আটক হয়েছেন কিনা জানতে চাইলে ওসি বলেন, এখনো র‌্যাব লিখিতভাবে থানায় কোন কিছুই জানায়নি। পরে বিস্তারিত জানানো হবে।