দরিদ্র ও শ্রমজীবি পরিবারে মাঝে খাদ্য সামগ্রী দিয়ে যাচ্ছেন আওয়ামীলীগ নেতা আহমদ রেজা

received_844554839346075.jpeg

এম.মনছুর আলম,চকরিয়া :
করোনা ভাইরাস সংক্রমণের প্রভাবে সারা দেশের ন্যায় চকরিয়া উপজেলা ও একটি পৌরসভা এলাকায় অঘোষিত ভাবে চলছে লকডাউন। এ দুর্যোগ সময়ে খেটে খাওয়া দরিদ্র ও নিম্ন আয়ের মানুষের কাজকর্ম সম্পূর্ণ ভাবে বন্ধ রয়েছে। সরকারের নির্দেশনা মেনে ঘরে বসে গৃহবন্দী হয়ে পড়েছে দরিদ্র পরিবারগুলো। বৈশ্বিক এ মহামারীর প্রাদুর্ভাবের কারণে প্রতিটি গ্রাম-শহরে অসহায়, নিম্নমধ্যবিত্ত ও দরিদ্র মানুষগুলো পড়েছে চরম ভাবে আর্থিক ও খাদ্য সংকটে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশনা আলোকে এ দুর্যোগের মুহুর্তে মানবিক সহায়তা হিসেবে ব্যক্তিগত তহবিল থেকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ২৫০০শত হতদরিদ্র ও কর্মহীন মানুষের জন্য ত্রাণ সামগ্রী বিতরণের প্রথম পর্যায়ের ৭শত পরিবারকে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছেন চকরিয়া পৌরসভা ৮নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতি ও মাতামুহুরী আদর্শ শিক্ষা নিকেতন চেয়ারম্যান, বিশিষ্ট সমাজ সেবক ও দানবীর আহমদ রেজা।
তিনি বুধবার (৮এপ্রিল) সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত চকরিয়া পৌরসভার ৮নম্বর ওয়ার্ডের কোচ পাড়া, চিরিংগা সোসাইটি ও টার্মিনাল পাড়ায় প্রথম দিনের মতো বিভিন্ন পাড়া-মহল্লায় গিয়ে দরিদ্র পরিবারের ঘরে ঘরে এ খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন।
খাদ্য সামগ্রী বিতরণের সময় উপস্থিত ছিলেন চকরিয়া উপজেলা যুবলীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম শহিদ, পৌরসভা যুবলীগের অর্থ সম্পাদক সেলিম রেজা, পৌরসভা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক পারভেজ সহ রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ।
খাদ্য সামগ্রী বিতরণ প্রসঙ্গে চকরিয়া পৌরসভা ৮নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মাতামুহুরী আদর্শ শিক্ষা নিকেতন চেয়ারম্যান, সমাজ সেবক ও দানবীর আহমদ রেজা বলেন , করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের প্রভাবে বর্তমানে শ্রমজীবি, দরিদ্র ও নিম্ন আয়ের পরিবার গুলো খুবই বেশি দুর্ভোগে আছে। দুর্যোগের এই মুর্হুতে এসব দরিদ্র মানুষের পাশে দাঁড়াতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি। নিজের পারিপার্শ্বিক, সামাজিক ও রাজনৈতিক দায়বদ্ধতা থেকে জাতীয় এ দুর্যোগ মুহুর্তে মানবিক সহায়তা হিসেবে এলাকার কর্মহীন ও সুবিধা বঞ্চিত মানুষের পাশে এসে আমার এ খাদ্য সহায়তা নিয়ে দাঁড়ানো।
তিনি আরও বলেন, আমার ব্যক্তিগত উদ্যোগে এই ওয়ার্ডের প্রতিটি পাড়া-মহল্লায় হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা কর্মহীন, দরিদ্র, নিম্ন মধ্যবিত্ত ও শ্রমজীবি মানুষের জন্য ২৫শত খাদ্যের প্যাকেট তৈরি করেছি। ইতিমধ্যে প্রথম পর্যায়ের ৭শত পরিবারের ঘরে ঘরে গিয়ে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে চাল, ডাল, আলু, পিয়াজ, তেলসহ খাদ্য সামগ্রীর প্যাকেট সবার হাতে তুলে দিয়েছি। ইনশাআল্লাহ অবশিষ্ট খাদ্য সামগ্রী ধারাবাহিক ভাবে বিতরণ করা হবে। আমি অতীতেও এলাকার বিভিন্ন সামাজিক, দুর্যোগ ও বিপদে আপদের সময় জনগণের মানবতার সেবায় সর্বদা পাশে নিয়োজিত ছিলাম, আছি এবং আগামীতেও তাদের পাশে থাকার চেষ্ঠা আমার সহায়তা অব্যাহত থাকবে। তবে এ দুর্যোগ মুহুর্তে যার যার অবস্থান থেকে জাতীয় এ মহামারীর প্রাদুর্ভাবে তাদের পাশে দাঁড়ানোটা এখন বিত্তবানসহ সকলের নৈতিক দায়িত্ব।