করোনায় মৃত্যু আতঙ্ক! ইসলাম কী বলে?

Death-1.jpg

ওয়ান নিউজ ডেক্সঃ করোনা একটি ভাইরাস। বিশ্বব্যাপী এ ভাইরাসটি নতুন দেখা দিয়েছে। এ ভাইরাসে আক্রান্ত হলেই নিশ্চিত মৃত্যু হবে এমনটি কেউ বলেনি। যথাযথ সতর্কতা অবলম্বন করলে এ ভাইরাস থেকে সুস্থ হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি।

করোনাভাইরাসে আতঙ্ক হওয়ার কিছু নেই। বরং দরকার হচ্ছে যথাযথ সতর্কতা অবলম্বন করা। সুতরাং করোনাভাইরাস সংক্রমণের আশঙ্কায় এ ভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে মেরে ফেলতে হবে বা সংক্রমিত ব্যক্তি মরে যাবে- এমনটি ভাবা ঠিক নয়। যদিও বিদেশে করোনা আক্রান্ত সন্দেহে মেরে ফেলার মতো ঘটনা ঘটেছে বলে জানা যায়।

প্রশ্ন এসে যায় যে, করোনা হলেই কি মানুষের মৃত্যু নিশ্চিত? ‘না’, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলেই মানুষ মরে না। বরং প্রাণঘাতী মহামারি করোনাভাইরাসে মৃত্যুবরণ করার চেয়ে সুস্থ হওয়ার সংখ্যাই বেশি। এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাস থেকে সুস্থ হওয়ার পরিসংখ্যানই তার প্রমাণ। ওয়াল্ডমেটারডটইনফোর তথ্যমতে-

‘শুধু বাংলাদেশে আক্রান্তের সংখ্যা ৫১ জন। সুস্থ হয়েছে ২৫ জন। মারা গেছে ৫ জন। বিশ্বে ৭ লাখ ৯৯ হাজার ৬৭৭ জন ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। ইতিমধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ৬৯ হাজার ৯৭৪ জন। মারা গেছেন ৩৮ হাজার ৭২০ জন। অন্যরা হসপাতাল কোয়ারেন্টাইনে চিকিৎসাধীন।’

মানুষের জীবন-মৃত্যু একমাত্র আল্লাহ তাআলার নিয়ন্ত্রণাধীন। তিনিই জানেন কে কখন কোথায় মৃত্যুবরণ করবেন কিংবা কত দিন বেঁচে থাকবেন। এমনকি মানুষ কী উপার্জন করবে তাও একমাত্র আল্লাহ তাআলাই জানেন যা অন্য কারো জানা সম্ভব নয়। মানুষের মৃত্যু সম্পর্কে কুরআনুল কারিমে আল্লাহ তাআলা ঘোষণা করেন-

إِنَّ اللَّهَ عِندَهُ عِلْمُ السَّاعَةِ وَيُنَزِّلُ الْغَيْثَ وَيَعْلَمُ مَا فِي الْأَرْحَامِ وَمَا تَدْرِي نَفْسٌ مَّاذَا تَكْسِبُ غَدًا وَمَا تَدْرِي نَفْسٌ بِأَيِّ أَرْضٍ تَمُوتُ إِنَّ اللَّهَ عَلِيمٌ خَبِيرٌ

‘নিশ্চয় আল্লাহর কাছেই কেয়ামতের (সময়) জ্ঞান রয়েছে। তিনিই বৃষ্টি বর্ষণ করেন এবং (নারী) গর্ভাশয়ে যা থাকে, তিনি তা জানেন। কেউ জানে না আগামীকাল সে কী উপার্জন করবে এবং কেউ জানে না কোন দেশে সে মৃত্যুবরণ করবে। আল্লাহ সব জানেন এবং সব বিষয়ে খবর রাখেন।’ (সুরা লোকমান : আয়াত ৩৪)

সম্প্রতি উত্তর কোরিয়ার বাণিজ্য দফতরের এক কর্মকর্তাকে চীন সফর শেষে নিজ দেশে ফেরার পর করোনাভাইরাস আক্রান্ত সন্দেহে নির্ধারিত কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছিল। ওই ব্যক্তি কোয়ারেন্টাইন থেকে শৌচাগারে যাওয়ার সময় তাকে গুলি করে হত্যা করা হয়।

গুজব শোনা যায় যে, ‘করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তিদের মরণাত্মক ইনজেকশন কিংবা গুলি করে বা আগুনে পুড়িয়ে মেরে ফেলা হয়। এগুলো যদি গুজব না হয়ে সত্যি হয় তবে এ ব্যাপারে ইসলামের দিকনির্দেশনা কী হবে?

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার কারণে অন্যদের মধ্যে সংক্রমণের ভয়ে মানুষকে গুলি করে, ইনজেকশন কিংবা আগুনে পুড়িয়ে মেরে ফেলা ইসলাম কোনোভাবেই সমর্থন করে না। আল্লাহ তাআলা কুরআনে পাকে ঘোষণা করেন-

يَغْفِرْ لَكُم مِّن ذُنُوبِكُمْ وَيُؤَخِّرْكُمْ إِلَى أَجَلٍ مُّسَمًّى إِنَّ أَجَلَ اللَّهِ إِذَا جَاء لَا يُؤَخَّرُ لَوْ كُنتُمْ تَعْلَمُونَ

‘আল্লাহ তাআলা তোমাদের পাপসমূহ ক্ষমা করবেন এবং নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত অবকাশ দেবেন। নিশ্চয় আল্লাহ তাআলার নির্দিষ্টকাল যখন সম্পন্ন হবে, তখন আর অবকাশ দেয়া হবে না, যদি তোমরা তা জানতে!’ (সুরা নুহ : আয়াত ৪)

কুরআনুল কারিমের এ আয়াতে এ কথা সুস্পষ্টভাবে প্রমাণিত যে মানুষের হায়াত পূর্বনির্ধারিত। কোনো ব্যক্তি নির্ধারিত সময়ের আগে মৃত্যুবরণ করবে না। নির্ধারিত সময়ের পরেও হবে না।

সুতরাং মানুষ করোনায় আক্রান্ত হোক কিংবা করোনার লক্ষণ দেখা যাক, তাতে চিন্তিত হয়ে অনিশ্চিত একটি বিষয়ের ওপর ভিত্তি করে নিরাপত্তাহীনতার নামে গুলি, ইনজেকশন কিংবা আগুনে পুড়িয়ে মেরে ফেলা কোনোভাবেই ইসলাম সমর্থন করে না। বরং তা হারাম ও অন্যায়ভাবে নিরপরাধ মানুষকে হত্যার অপরাধের শামিল।

আল্লাহ তাআলা মানুষকে লক্ষ্য করে অন্যায়ভাবে মানুষ হত্যার ভয়াবহতা সম্পর্কে কুরআনে উল্লেখ করেন-

– وَمَن يَقْتُلْ مُؤْمِنًا مُّتَعَمِّدًا فَجَزَآؤُهُ جَهَنَّمُ خَالِدًا فِيهَا وَغَضِبَ اللّهُ عَلَيْهِ وَلَعَنَهُ وَأَعَدَّ لَهُ عَذَابًا عَظِيمًا

যে ব্যক্তি স্বেচ্ছাক্রমে মুসলমানকে হত্যা করে, তার শাস্তি জাহান্নাম, তাতেই সে চিরকাল থাকবে। আল্লাহ তার প্রতি ক্রুদ্ধ হয়েছেন, তাকে অভিসম্পাত করেছেন এবং তার জন্য ভীষণ শাস্তি প্রস্তুত রেখেছেন।’ নাউজুবিল্লাহ! (সুরা নিসা : আয়াত ৯৩)

– مِنْ أَجْلِ ذَلِكَ كَتَبْنَا عَلَى بَنِي إِسْرَائِيلَ أَنَّهُ مَن قَتَلَ نَفْسًا بِغَيْرِ نَفْسٍ أَوْ فَسَادٍ فِي الأَرْضِ فَكَأَنَّمَا قَتَلَ النَّاسَ جَمِيعًا وَمَنْ أَحْيَاهَا فَكَأَنَّمَا أَحْيَا النَّاسَ جَمِيعًا وَلَقَدْ جَاءتْهُمْ رُسُلُنَا بِالبَيِّنَاتِ ثُمَّ إِنَّ كَثِيراً مِّنْهُم بَعْدَ ذَلِكَ فِي الأَرْضِ لَمُسْرِفُونَ

‘এ কারণেই আমি বনি ইসরাইলের প্রতি বিধান জারি করেছিলাম যে, যারা প্রাণের বিনিময়ে প্রাণ অথবা পৃথিবীতে অনর্থ কাউকে হত্যা করে সে যেন সব মানুষকেই হত্যা করে। এবং যে কারও জীবন রক্ষা করে, সে যেন সবার জীবন রক্ষা করে। তাদের কাছে আমার পয়গম্বরগণ প্রকাশ্য নিদর্শনাবলি নিয়ে এসেছেন। বস্তুত এরপরও তাদের অনেক লোক পৃথিবীতে সীমা অতিক্রম করে।’ (সুরা মায়েদা : আয়াত ৩২)

করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি কিংবা করোনায় আক্রান্ত সন্দেহে কাউহে হত্যা মারাত্মক অপরাধ। হাদিসে পাকে প্রিয় নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ঘোষণা করেছেন-

হজরত আনাস রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘

কবিরা (বড়) গোনাহসমূহের মধ্যে সবচেয়ে বড় গোনাহ হচ্ছে-

– আল্লাহর সঙ্গে কাউকে অংশীদার স্থাপন করা।
– মানুষ হত্যা করা।
– মা-বাবার অবাধ্য হওয়া আর
– মিথ্যা কথা বলা কিংবা
– মিথ্যা সাক্ষ্য দেয়া।’ (বুখারি)

মানুষ হত্যা মানবতা হত্যার শামিল। হাদিসে এসেছে-

হজরত আব্দুল্লাহ ইবনে ওমর রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘আল্লাহর কাছে পৃথিবী ধ্বংস হওয়াটা অধিকতর সহজ ব্যাপার একজন মুসলিম খুন হওয়ার পরিবর্তে।’ (তিরমিজি)

মনে রাখতে হবে

জীবন-মৃত্যুর মালিক আল্লাহ। তিনি না চাইলে করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তিও মরবে না। তাই করোনায় আক্রান্ত সন্দেহে কিংবা করোনায় আক্রান্ত হলেও কোনো মানুষকে মেরে ফেলো অনেক বড় অপরাধ। যার রয়েছে ভয়াবহ শাস্তি।

আল্লাহ তাআলা বিশ্বব্যাপী করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তিকে কিংবা আক্রান্ত হওয়ার ভয়ে কাউকে মেরে ফেলার মতো ভয়াবহ অপরাধ থেকে মানুষকে হেফাজত করুন। করোনাভাইরাসসহ যাবতীয় মহামারি থেকে হেফাজত থাকার তাওফিক দান করুন। যারা আক্রান্ত হয়েছে তাদেরকে সুস্থতা দান করুন। আমিন।