কচ্ছপিয়াতে বালুখেকোদের গণধোলাই দিলো এলাকাবাসী

IMG_20200223_231108.jpg

রামু প্রতিনিধিঃ

রামু উপজেলার গর্জনিয়া কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের বালি খেকোদের সন্ত্রাসীদের গনধোলাই দিয়েছেন কচ্ছপিয়ার নতুন তিতার পাড়ার এলাকাবাসী।শনিবার (২২ ফেব্রুয়ারী) সন্ধ্যা ৬ টায় মোঃ আবদুল্লাহ (৩৫) মোঃ লোকমান হাকিম (৪০) মোঃ আজিজ (৩০) সহ একদল সন্ত্রাসী গর্জনিয়ার গর্জয় খাল থেকে প্রতিদিনের মত সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত আহরহ টলি এবং অবৈধ লাইসেন্স বীহিন ডাম্পার দিয়ে মাহামান্য হাই কোর্টের আদেশ অমান্য করে বালি পাচার করতে থাকে।

কচ্ছপিয়া ইউনিয়ের জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি সাংবাদিক আবুতালেব সিকদার গর্জনিয়া বাজার ব্যাসায়িক কাজে যাওয়ার পথে রামু উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশ মতে নতুন তিতার পাড়া মসজিদের পাশে উক্ত অবৈধ বালির গাড়ির ড্রাইভারের কাছে জানতে চাইলে ড্রাইভারেরা বলে আব্দুল্লাহ এবং লোকমানদের গাড়ি,কথা বলতে না বলতে ২০ থেকে ৩০ জন সন্ত্রাসী সাংবাদিক আবুতালেব সিকদারকে ঘিরে ফেলে প্রচণ্ড মারধর শুরু করে এবং স্যামসাং টাচ মোবাইল সহ ২০০০০ বিশ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। তৎমধ্যে সন্ত্রাসীদের লিডার লোকমান হাকিম এবং আব্দুল্লাহ হকুম করে তাকে জানে মেরে ফেল,কত টাকা লাগবে আমরা খরচ করবো।গাড়ির নিচে চাপা দিয়ে শেষ করে দাও।

তখন আবুতালেব সিকদার প্রানের মায়ায় চিৎকার করলে পাশের মসজিদ হতে মাগরিবের নামাজ পড়ুয়া মুসল্লীরা সহ এলাকার মা বোনেরা এগিয়ে এসে আবুতালেব সিকদারকে সন্ত্রাসীদের হাত থেকে রক্ষা করে।

এক পর্যায়ে কথা কাটা কাটি হয়ে সন্ত্রাসীরা এলাকাবাসীর উপর হামলা শুরু করে।এলাকাবাসী নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে পাল্টা হামলা করে সন্ত্রাসীদের এলাকা থেকে বিতাড়িত করে। আবুতালেব সিকদার জানান, আমি একজন গন মাধ্যম কর্মী হিসাবে আমাদের জীবনের নিরাপত্তা নেই। এলাকাবাসীরা সন্ত্রাসীদের আইনের আওতায় এনে কঠিন শাস্তির দাবী জানিয়েছেন প্রশাসনের সর্বোচ্চ মহলের কাছে।